ETV Bharat / state

আকাশপথে রেমাল বিধ্বস্ত এলাকা দেখতে পারেন মুখ্যমন্ত্রী, ত্রাণ নিয়ে মুখ্যসচিবের সঙ্গে কথা মমতার - Cyclone Remal Effect

author img

By ETV Bharat Bangla Team

Published : May 28, 2024, 5:32 PM IST

CM Mamata Banerjee on Remal Effect: ঘূর্ণিঝড় রেমালের জেরে বিধ্বস্ত মানুষদের ত্রাণ নিয়ে মুখ্যসচিবের সঙ্গে কথা বলেছেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় ৷ তিনি বুধবার আকাশপথে বিপর্যস্ত এলাকা ঘুরে দেখবেন বলেও জানা গিয়েছে ৷ তার আগে আজই মুখ্যমন্ত্রীর কাছে ক্ষয়ক্ষতির রিপোর্ট জমা পড়তে পারে ৷

Remal Effect in South Bengal
রেমালে ক্ষতিগ্রস্ত বাংলার দক্ষিণের জেলা (ইটিভি ভারত)

কলকাতা, 28 মে: অতি শক্তিশালী ঘূর্ণিঝড় রেমালের কারণে সবচেয়ে ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে দক্ষিণ 24 পরগনা জেলা ৷ নবান্ন সূত্রে তেমনটাই জানা গিয়েছে । এই প্রাকৃতিক দুর্যোগ নিয়ে সোমবারই উত্তর কলকাতার সত্যনারায়ণ পার্ক থেকে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় বলেছিলেন প্রশাসনের উপর ভরসা রাখতে ৷ প্রশাসনের তরফ থেকে সব ধরনের সাহায্য এবং ত্রাণ পৌঁছে দেওয়ার ব্যবস্থা করা হচ্ছে ৷ এরপর মঙ্গলবার মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের তরফে রাজ্যের মুখ্যসচিব ভগবতী প্রসাদ গোপালিকার সঙ্গে এই বিষয়ে কথা হয়েছে বলে জানা গিয়েছে ৷ মুখ্যমন্ত্রী তাঁর কাছ থেকে খবর নিয়েছেন, ঘূর্ণিঝড় বিধ্বস্ত বিভিন্ন এলাকায় ত্রাণ পৌঁছে দেওয়ার কাজ ঠিকমতো হচ্ছে কি না ৷ উদ্ধারকার্য নিয়েও খবর নিয়েছেন তিনি ৷

নবান্ন সূত্রে জানা গিয়েছে, অতি শক্তিশালী ঘূর্ণিঝড় রেমাল নিয়ে রাজ্য সরকারের তরফে প্রতিটি জেলা ধরে ধরে ক্ষয়ক্ষতির হিসেব করা হচ্ছে ৷ এক্ষেত্রে কতগুলি বাড়ির ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে, কৃষি জমি গবাদিপশুর ক্ষয়ক্ষতির পরিমাণ কত, ফসলের ক্ষেতে বা মাছ চাষের ভেড়িতে জল ঢুকে যাওয়ার জন্য ক্ষয়ক্ষতি হলে, তার পরিমাণ কত! মনে করা হচ্ছে, মঙ্গলবার বিকেলের মধ্যে ক্ষয়ক্ষতির একটা প্রাথমিক রিপোর্ট নবান্নের কাছে পৌঁছে যাবে ৷

আরও পড়ুন: তিলোত্তমার সবুজে ক্ষত! রেমালের গ্রাসে মহানগরের 400 গাছ

সূত্রের খবর, বুধবার তৃণমূল সুপ্রিমো ঘূর্ণিঝড় বিধ্বস্ত এলাকাটি আকাশপথে ঘুরে দেখবেন ৷ তার আগে তাঁর হাতে এই নিয়ে তৈরি করা রিপোর্ট তুলে দেওয়া হবে বলে খবর ৷ গতকাল মুখ্যমন্ত্রী জানিয়েছিলেন ঘূর্ণিঝড় বিধ্বস্ত এরিয়াল ভিউ নিতে চান তিনি ৷ তারপর তৃণমূল কংগ্রেসের একটি সূত্র থেকে আগামিকাল মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের ঘূর্ণিঝড় বিধ্বস্ত এলাকায় যাওয়ার খবরও পাওয়া যাচ্ছে ৷

ইতিমধ্যে রাজ্য প্রশাসনের পক্ষ থেকে রেমালে মৃতদের পরিবার পিছু দু'লক্ষ টাকা করে ক্ষতিপূরণ দেওয়ার কথা ঘোষণা করেছে ৷ এখনও পর্যন্ত এই ঘূর্ণিঝড়ে বাংলায় ছ'জনের মৃত্যু হয়েছে ৷ রাজ্যের বিভিন্ন প্রান্ত থেকে বিদ্যুৎ বিভ্রাটের খবর আসছে ৷ তা যাতে দ্রুত স্বাভাবিক করা যায়, তার জন্য মুখ্যমন্ত্রী কথা বলেছেন বলে জানা গিয়েছে ৷

প্রসঙ্গত গতকালই রাজ্যের বিদ্যুৎ মন্ত্রী অরূপ বিশ্বাস সাংবাদিক সম্মেলন করে বলেছেন, "ঘূর্ণিঝড়ে রাজ্যের মোট 62টি সাবস্টেশন ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে ৷ হাইটেনশন লাইনে গাছ পড়ে এই সাবস্টেশনগুলি বন্ধ হয়েছে ৷ সোমবার দুপুর 3টে পর্যন্ত 49টি সাবস্টেশন পুনরুদ্ধার করা হয়েছে ৷ 2 হাজার 350টি বিদ্যুতের পোল ড্যামেজ হয়েছে ৷ ট্রান্সফর্মার ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে 140 টি ৷ ইনসুলেটর ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে 5 হাজার 400 টি ৷" এইসব সমস্যা কাটিয়ে যাতে দ্রুত সবকিছু ঠিকঠাক করা যায় তার নির্দেশ দিয়েছেন মমতা ৷

আরও পড়ুন: রেমাল মোকাবিলায় 8 সদস্যের চিকিৎসক টাস্কফোর্স গঠন, সরজমিনে তদারকি রাজ্যপালের

কলকাতা, 28 মে: অতি শক্তিশালী ঘূর্ণিঝড় রেমালের কারণে সবচেয়ে ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে দক্ষিণ 24 পরগনা জেলা ৷ নবান্ন সূত্রে তেমনটাই জানা গিয়েছে । এই প্রাকৃতিক দুর্যোগ নিয়ে সোমবারই উত্তর কলকাতার সত্যনারায়ণ পার্ক থেকে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় বলেছিলেন প্রশাসনের উপর ভরসা রাখতে ৷ প্রশাসনের তরফ থেকে সব ধরনের সাহায্য এবং ত্রাণ পৌঁছে দেওয়ার ব্যবস্থা করা হচ্ছে ৷ এরপর মঙ্গলবার মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের তরফে রাজ্যের মুখ্যসচিব ভগবতী প্রসাদ গোপালিকার সঙ্গে এই বিষয়ে কথা হয়েছে বলে জানা গিয়েছে ৷ মুখ্যমন্ত্রী তাঁর কাছ থেকে খবর নিয়েছেন, ঘূর্ণিঝড় বিধ্বস্ত বিভিন্ন এলাকায় ত্রাণ পৌঁছে দেওয়ার কাজ ঠিকমতো হচ্ছে কি না ৷ উদ্ধারকার্য নিয়েও খবর নিয়েছেন তিনি ৷

নবান্ন সূত্রে জানা গিয়েছে, অতি শক্তিশালী ঘূর্ণিঝড় রেমাল নিয়ে রাজ্য সরকারের তরফে প্রতিটি জেলা ধরে ধরে ক্ষয়ক্ষতির হিসেব করা হচ্ছে ৷ এক্ষেত্রে কতগুলি বাড়ির ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে, কৃষি জমি গবাদিপশুর ক্ষয়ক্ষতির পরিমাণ কত, ফসলের ক্ষেতে বা মাছ চাষের ভেড়িতে জল ঢুকে যাওয়ার জন্য ক্ষয়ক্ষতি হলে, তার পরিমাণ কত! মনে করা হচ্ছে, মঙ্গলবার বিকেলের মধ্যে ক্ষয়ক্ষতির একটা প্রাথমিক রিপোর্ট নবান্নের কাছে পৌঁছে যাবে ৷

আরও পড়ুন: তিলোত্তমার সবুজে ক্ষত! রেমালের গ্রাসে মহানগরের 400 গাছ

সূত্রের খবর, বুধবার তৃণমূল সুপ্রিমো ঘূর্ণিঝড় বিধ্বস্ত এলাকাটি আকাশপথে ঘুরে দেখবেন ৷ তার আগে তাঁর হাতে এই নিয়ে তৈরি করা রিপোর্ট তুলে দেওয়া হবে বলে খবর ৷ গতকাল মুখ্যমন্ত্রী জানিয়েছিলেন ঘূর্ণিঝড় বিধ্বস্ত এরিয়াল ভিউ নিতে চান তিনি ৷ তারপর তৃণমূল কংগ্রেসের একটি সূত্র থেকে আগামিকাল মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের ঘূর্ণিঝড় বিধ্বস্ত এলাকায় যাওয়ার খবরও পাওয়া যাচ্ছে ৷

ইতিমধ্যে রাজ্য প্রশাসনের পক্ষ থেকে রেমালে মৃতদের পরিবার পিছু দু'লক্ষ টাকা করে ক্ষতিপূরণ দেওয়ার কথা ঘোষণা করেছে ৷ এখনও পর্যন্ত এই ঘূর্ণিঝড়ে বাংলায় ছ'জনের মৃত্যু হয়েছে ৷ রাজ্যের বিভিন্ন প্রান্ত থেকে বিদ্যুৎ বিভ্রাটের খবর আসছে ৷ তা যাতে দ্রুত স্বাভাবিক করা যায়, তার জন্য মুখ্যমন্ত্রী কথা বলেছেন বলে জানা গিয়েছে ৷

প্রসঙ্গত গতকালই রাজ্যের বিদ্যুৎ মন্ত্রী অরূপ বিশ্বাস সাংবাদিক সম্মেলন করে বলেছেন, "ঘূর্ণিঝড়ে রাজ্যের মোট 62টি সাবস্টেশন ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে ৷ হাইটেনশন লাইনে গাছ পড়ে এই সাবস্টেশনগুলি বন্ধ হয়েছে ৷ সোমবার দুপুর 3টে পর্যন্ত 49টি সাবস্টেশন পুনরুদ্ধার করা হয়েছে ৷ 2 হাজার 350টি বিদ্যুতের পোল ড্যামেজ হয়েছে ৷ ট্রান্সফর্মার ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে 140 টি ৷ ইনসুলেটর ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে 5 হাজার 400 টি ৷" এইসব সমস্যা কাটিয়ে যাতে দ্রুত সবকিছু ঠিকঠাক করা যায় তার নির্দেশ দিয়েছেন মমতা ৷

আরও পড়ুন: রেমাল মোকাবিলায় 8 সদস্যের চিকিৎসক টাস্কফোর্স গঠন, সরজমিনে তদারকি রাজ্যপালের

ETV Bharat Logo

Copyright © 2024 Ushodaya Enterprises Pvt. Ltd., All Rights Reserved.