বোনকে খুনের কথা স্বীকার মাদকাসক্ত দাদার, মালদা শহরজুড়ে চলছে মাদক বিরোধী প্রচার

author img

By ETV Bharat Bangla Desk

Published : Feb 7, 2024, 11:00 PM IST

Etv Bharat

Murder in Malda: মালদায় কিশোরী খুনে চাঞ্চল্যকর তথ্য ৷ অভিযুক্ত মাদকাসক্ত জেঠতুতো দাদা ৷ পুলিশি জেলায় খুনের কথা স্বীকার ককে নিয়েছে অভিযুক্ত ৷ শহরকে মাদকমুক্ত করতে নারকোটিক সেল গঠন প্রশাসনের ৷

মালদা, 7 ফেব্রুয়ারি: নাবালিকার নৃশংস খুনে শিউড়ে উঠেছিল শহরবাসী ৷ জেরায় বোনকে খুনের কথা জ্যেঠতুতো দাদা স্বীকার করে নিয়েছে বলে দাবি পুলিশের ৷ আপাতত পুলিশি হেফাজতে আছে অভিযুক্ত ৷ তবে খুনে ব্যবহৃত অস্ত্রটি অভিযুক্ত ব্যবহার করেছে, সেটাও অধরা ৷

এদিকে জেলা পুলিশের এক শীর্ষকর্তা জানান, ধৃত যুবক মাদকাসক্ত ছিল ৷ সে ড্রাগস নিত ৷ নেশাগ্রস্ত অবস্থায় সে এই কাজ করেছে কি না, তা জানার চেষ্টা চলছে ৷ তবে ইতিমধ্যেই শহরের ড্রাগসের ব্যবসা বন্ধ করতে একাধিক পদক্ষেপ নিয়েছে স্থানীয় প্রশাসন ৷ গঠন করা হয়েছে নারকোটিক সেল ৷ সেকথা স্বীকার করেছেন খোদ জেলাশাসক ৷

প্রসঙ্গত, বর্তমানে জেলাজুড়ে মাদক ব্যবসা রমরমিয়ে চলছে ৷ বিশেষত বস্তি এলাকায় মাদকের ব্যবসার রমরমা চলছে ৷ সেই মাদক কারবার শহর থেকে উৎখাত করতে উঠে পড়ে লেগেছে জেলা প্রশাসন ৷ গঠন করা হয়েছে নারকোটিক সেল ৷ সেই কমিটিতে প্রশাসন, পুলিশ, পরিবহণ দফতর, পৌরসভার প্রতিনিধিদের রাখা হয়েছে ৷ কমিটির নেতৃত্বে রয়েছেন অতিরিক্ত জেলাশাসক (সাধারণ) পীযূষ সালুঙ্খে ৷ শহরের যেসব এলাকায় মাদকের কারবার চলে, সেই এলাকাগুলিকে চিহ্নিত করা হয়েছে ৷ বেশ কিছু পকেট এলাকাকে নিয়ে আসা হয়েছে রেড জোনে ৷ এসব এলাকায় নিয়মিত পুলিশি অভিযান চালানো হবে বলে প্রশাসনিক সূত্রে খবর ৷

মালদার মাদক পরিস্থিতি নিয়ে জেলাশাসক নীতিন সিংঘানিয়া বলেন, "মাদকের বিরুদ্ধে আমরা গত বছর থেকে কাজ শুরু করেছি ৷ মালদাকে মাদকমুক্ত করতেই এমন সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে ৷ আমরা ঠিক করেছি, মাদকাসক্তদের রিহ্যাবিলিটেশন সেন্টারে পাঠিয়ে সুস্থ করে তোলা হবে ৷ তারপর তাদের পরিবারের হাতে তুলে দেওয়া হবে ৷ এর জন্য আমরা একাধিক রিহ্যাবিলিটেশন সেন্টারের সঙ্গে বৈঠক করেছি ৷ নারকোটিক সেলে জেলা প্রশাসনের সঙ্গে পুলিশ, পৌরসভা-সহ একাধিক দফতর আছে ৷ মালদা শহরের যেসব জায়গা মাদক কারবারের জন্য কুখ্যাত হিসাবে চিহ্নিত হয়েছে, সেই জায়গাগুলিতে নিয়মিত পুলিশি টহলদারি চলবে ৷"

এদিকে ইংরেজবাজার পৌরসভার চেয়ারম্যান কৃষ্ণেন্দুনারায়ণ চৌধুরী জানান, মাদকের বিরুদ্ধে লড়াই চালাতে আমরা এই শহরকে চারটি জোনে ভাগ করেছি ৷ প্রতিটি জোনে একটি করে কমিটি তৈরি করা হবে ৷ ওই কমিটিতে সকলস্তরের মানুষকে রাখা হয়েছে ৷ কমিটির সদস্যরা নিজেদের জোনে মাদকের বিরুদ্ধে প্রচার চালাবেন ৷ ওই জোনে মাদকাসক্তদের চিহ্নিত করে রিহ্যাবিলিটেশন সেন্টারে পাঠানে হবে প্রশাসনের উদ্যোগে ৷

আরও পড়ুন:

  1. মালদায় বাড়িতে ঢুকে সত্তরোর্ধ বৃদ্ধকে ধারালো অস্ত্র দিয়ে খুন
  2. পাওনা টাকা ফেরত দেওয়ার নামে ডেকে পিটিয়ে খুন
  3. বধূকে কোপানোর পর আত্মহত্য়ার চেষ্টা যুবকের, অনুমান অবৈধ সম্পর্ক
ETV Bharat Logo

Copyright © 2024 Ushodaya Enterprises Pvt. Ltd., All Rights Reserved.