'মুখ্যমন্ত্রীর নিরাপত্তার কারণে দেহ উদ্ধারে সময় লেগেছে', মালদাকাণ্ডে বিস্ফোরক সুকান্ত

author img

By ETV Bharat Bangla Desk

Published : Feb 4, 2024, 2:59 PM IST

ETV Bharat

Sukanta Majumdar: মালদায় নাবালিকা খুনের ঘটনায় জেলা প্রশাসনের তীব্র সমালোচনা করলেন বিজেপির রাজ্য সভাপতি সুকান্ত মজুমদার ৷ এই ঘটনার সময় জেলা সফরেই ছিলেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় ৷ তিনি রাজ্যের স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীও ৷ আর নাবালিকার দেহ উদ্ধারের সময় মুখ্যমন্ত্রী মালদাতেই ছিলেন ৷

মালদায় নাবালিকার দেহ উদ্ধারের ঘটনায় তৃণমূল ও প্রশাসনকে দুষলেন বিজেপি রাজ্য সভাপতি সুকান্ত মজুমদার

মালদা, 4 ফেব্রুয়ারি: নাবালিকার মুণ্ডহীন দেহ উদ্ধারের ঘটনায় এখনও ক্ষোভে ফুঁসছে মালদা শহর ৷ প্রতিদিনই দোষীদের শাস্তির দাবিতে রাস্তায় নামছে শহরবাসী ৷ শনিবার রাতে রাজ্য শিশু সুরক্ষা কমিশন পরিবারের সঙ্গে দেখা করে ৷ রবিবার সকালে নাবালিকার পরিবারের সঙ্গে দেখা করতে যান বিজেপির রাজ্য সভাপতি সুকান্ত মজুমদার ৷

এদিন সাংবাদিক বৈঠকে সুকান্ত বলেন, "কেন, কীভাবে এই এই নৃশংস হত্যাকাণ্ড ঘটল, তা নিয়ে উচ্চস্তরীয় তদন্ত হওয়া উচিত ৷ ধৃত যুবক একাই এই ঘটনা ঘটিয়েছে নাকি আরও কেউ জড়িত আছে, তাও দেখতে হবে ৷" তাঁর অভিযোগ, পুলিশের তদন্তে গাফিলতি রয়েছে ৷ বিজেপি সাংসদ বলেন, "আমাদের কাছে খবর এসেছে, ঘটনাস্থলে এখনও নাবালিকার চশমা পড়ে রয়েছে ৷ নিয়ম অনুযায়ী চব্বিশ ঘণ্টার মধ্যে সব সামগ্রী পুলিশের হেফাজতে চলে যাওয়া উচিত ৷" প্রশাসন জেলায় শান্তিশৃঙ্খলা বজায় রাখতে পুরোপুরি ব্যর্থ হয়েছে বলে ক্ষোভ উগরে দেন বিজেপি নেতা ৷

তিনি আরও বলেন, "মুখ্যমন্ত্রী মালদায় যখন ছিলেন, সেই সময় এই ঘটনা ঘটেছে ৷ মুখ্যমন্ত্রীর নিরাপত্তা ব্যবস্থা দেখতে গিয়ে মৃতদেহ উদ্ধার করতে সময় লেগেছে ৷ রাজ্যের প্রশাসনিক প্রধানের উপস্থিতিতে যদি এই ঘটনা ঘটে তবে নিশ্চিত যে অপরাধীদের মনে পুলিশকে নিয়ে কোনও ভয় নেই ৷ আমরা খবর পেলাম, মূল অভিযুক্ত নেশা করত ৷ স্থানীয় সূত্রেও আমরা জানতে পেরেছি, মালদায় যুবক-যুবতীদের মাদক ভয়ঙ্করভাবে প্রভাবিত করছে ৷"

এই মাদক চক্রে সঙ্গে পুলিশ প্রশাসন ও জেলা তৃণমূলের মদত রয়েছে ৷ সুকান্তর অভিযোগ, "জেলা তৃণমূলের কাছে মাদক ব্যবসায়ীরা মাসোহারা পৌঁছে দিচ্ছে ৷ মৃতদেহ উদ্ধারের সময় ইংরেজবাজার পৌরসভার চেয়ারম্যান সেখানে যাচ্ছেন ৷ অর্থাৎ সকলের কাছে খবর ছিল, মৃতদেহ কোথায় আছে ৷ এটা পুরো নাটক ৷ এই নাবালিকা করোনার সময় নিজের জমানো টাকা মুখ্যমন্ত্রীর তহবিলে দান করেছিল ৷"

ঘাটালের তৃণমূল সাংসদ অভিনেতা দেবের পদত্যাগ বিষয়ে সুকান্ত বলেন, "দেবের সিনেমাতে গরু ও কয়লাপাচারের টাকা লগ্নি হয়েছিল ৷ তাই কেন্দ্রীয় তদন্তকারী সংস্থা তাঁকে ডেকে পাঠিয়েছিল ৷ তখনও আমি বলেছিলাম, আবার বলছি, সৎ সঙ্গে স্বর্গবাস, অসৎ সঙ্গে নরকবাস ৷ দেব এমনি ছেলে ভালো ৷ তাঁকে অসৎ সঙ্গ ত্যাগ করতে বলব ৷ ওর কোনও দিনই ভোটে দাঁড়ানোর ইচ্ছে ছিল না ৷ আগামী দিনেও নেই ৷ ফিরহাদ হাকিমের একটি ভিডিয়ো ভাইরাল হয়েছিল, সেখানে শোনা গিয়েছিল মুখ্যমন্ত্রী জোর করে দেবকে ভোটের ময়দানে নামিয়েছিলেন ৷ এবারও তার উপর জোর দেওয়া হচ্ছে ৷”

আরও পড়ুন:

  1. উদ্ধার মুণ্ডহীন দেহ, নাবালিকাকে খুনের প্রতিবাদে অগ্নিগর্ভ মালদা
  2. লোকসভার মুখে ইস্তফা দেবের ! তিনটে পদ থেকে সরে দাঁড়ালেন অভিনেতা-সাংসদ
  3. রাহুলের জন্য সরকারি বাংলো ব্যবহারের অনুমতি দেয়নি মালদা প্রশাসন, অভিযোগ কংগ্রেসের
ETV Bharat Logo

Copyright © 2024 Ushodaya Enterprises Pvt. Ltd., All Rights Reserved.