নরেন্দ্রপুর ভেঙে 3টি থানা করার সিদ্ধান্ত মন্ত্রিসভার, 2টি কলকাতা পুলিশের আওতায়

author img

By ETV Bharat Bangla Desk

Published : Feb 6, 2024, 10:52 AM IST

Updated : Feb 6, 2024, 11:08 AM IST

ETV BHARAT

State Cabinet Meeting: রাজ্য মন্ত্রিসভার বৈঠকে নরেন্দ্রপুর থানাকে ভেঙে তিনটি নতুন থানা তৈরি করার সিদ্ধান্ত নেওয়া হল ৷ সাম্প্রতিক সময়ে নরেন্দ্রপুর এলাকায় বাড়তে থাকা অপরাধ ও আইনশৃঙ্খলা জনিত কারণেই এই সিদ্ধান্ত বলে নবান্ন সূত্রে খবর ৷ উল্লেখ্য, যে নতুন দু’টি থানা তৈরি হবে সেগুলিকে কলকাতা পুলিশের আওতায় আনা হবে বলে জানা গিয়েছে ৷

কলকাতা, 6 ফেব্রুয়ারি: নরেন্দ্রপুর থানাকে ভেঙে তিনটি থানা করার সিদ্ধান্ত নিল রাজ্য সরকার ৷ এই তিনটি থানা হল নরেন্দ্রপুর, খেয়াদহ ও আটঘড়া ৷ দীর্ঘদিন ধরে নরেন্দ্রপুর থানাকে কলকাতা পুলিশের আওতায় আনার দাবি উঠছিল সাধারণ মানুষের তরফে ৷ লোকসভা নির্বাচনের আগে সে বিষয়েই গুরুত্বপূর্ণ পদক্ষেপ নিল রাজ্য মন্ত্রিসভা ৷ সোমবার রাজ্য মন্ত্রিসভার বৈঠকে নরেন্দ্রপুর থানাকে তিনটি ভাগে ভাগ করা পাশাপাশি, এর মধ্যে দু’টি থানাকে কলকাতা পুলিশের আওতায় নিয়ে আসা হয়েছে ৷

যেখানে খেয়াদহ ও আটঘরা থানা থাকবে কলকাতা পুলিশের আওতায় ৷ আর বাকি অংশ নরেন্দ্রপুর থানার নামে থাকবে বারুইপুর পুলিশ জেলার অধীনে ৷ সেই সঙ্গে নতুন তৈরি দু’টি থানার জন্য বিভিন্ন শ্রেণির মোট 314টি পদ তৈরি করার প্রস্তাব দেওয়া হয়েছে মন্ত্রিসভার বৈঠকে ৷ প্রসঙ্গত, এর আগে রাজ্য বিধানসভায় দাঁড়িয়ে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় জানিয়েছিলেন, সরকার নরেন্দ্রপুরের খেয়াদহ এলাকাকে কলকাতা পুলিশের আওতায় আনতে চায় ৷ সোমবার রাজ্য মন্ত্রিসভা মূলত সেই সিদ্ধান্তে সিলমোহর দিয়েছে ৷

সাম্প্রতিক সময়ে একাধিক আইনশৃঙ্খলা জনিত সমস্যা তৈরি হয়েছে নরেন্দ্রপুর থানা এলাকায় ৷ বারুইপুর পুলিশ জেলার অধীনে থাকা এই থানাটিকে নরেন্দ্রপুর গড়িয়া-সহ একটি বিস্তীর্ণ এলাকার আইনশৃঙ্খলা নিয়ন্ত্রণ করতে হয় ৷ যার জেরে বিভিন্ন সময়ে বেশকিছু ফাঁকফোকড় থেকেই যেত ৷ যার সাম্প্রতিক সময়ের উদাহরণ হল, নরেন্দ্রপুরের বলরামপুর এমএন বিদ্যামন্দিরের ঘটনা ৷ অষ্টম শ্রেণির ছাত্রীকে যৌন হেনস্থার অভিযোগ উঠেছিল এক শিক্ষকের বিরুদ্ধে ৷ কিন্তু, স্কুল কর্তৃপক্ষ কোনও পদক্ষেপ করেনি বলে অভিযোগ ওঠে ৷

যে ঘটনার সূত্র ধরে গত 27 জানুয়ারি হঠাৎই এক ঝাঁক বহিরাগত স্কুলে ঢুকে পড়ে ৷ এর পর টিচার্সরুম ও ক্লাসরুমে ঢুকে শিক্ষক-শিক্ষিকাদের মারধর, হেনস্থা ও স্কুলের সম্পত্তি ভাঙচুরের অভিযোগ ওঠে ৷ যে ঘটনার পর হামলায় মদত দেওয়ার অভিযোগে প্রধান শিক্ষক-সহ প্রায় 50 জনের বিরুদ্ধে লিখিত অভিযোগ দায়ের হয় ৷ কিন্তু, পুলিশের বিরুদ্ধে অভিযুক্তদের গ্রেফতারির ক্ষেত্রেও নিষ্ক্রিয়তার অভিযোগ ওঠে ৷ পরবর্তী সময়ে বিষয়টি কলকাতা হাইকোর্টে যায় ৷ এরপর কয়েকজনকে গ্রেফতার করে তদন্ত শুরু হয় ৷

এমনকী গত রবিবার নরেন্দ্রপুরে এক ইঞ্জিনিয়ারিং পড়ুয়ার দেহ পুকুর ভেসে ওঠে ৷ যে ঘটনাতেও পুলিশের বিরুদ্ধে তদন্তে গাফিলতির অভিযোগ উঠেছে ৷ জানা গিয়েছিল, ওই পড়ুয়া গত 1 ফেব্রুয়ারি রাত থেকে নিখোঁজ ছিল ৷ অভিযোগ জানালেও, পুলিশ নিখোঁজ পড়ুয়াকে খোঁজার কোনও চেষ্টাই করেনি ৷ চারদিন পরে ওই পড়ুয়ার দেহ উদ্ধার হয় ৷ তার পরেই পুলিশকে ঘিরে বিক্ষোভ ও মারধরের ঘটনা ঘটে ৷ এমন নানান ঘটনার প্রেক্ষিতে নরেন্দ্রপুর থানাকে ভেঙে তিনটি থানা তৈরির সিদ্ধান্ত বেশ ইঙ্গিত বহুল বলেই মনে করা হচ্ছে ৷

এমনকি সাম্প্রতিক অতীতে দক্ষিণ 24 পরগনা জেলার আওতায় থাকা ভাঙড়কে কলকাতা পুলিশের আওতায় নিয়ে আসার কথা ঘোষণা করেছিলেন মুখ্যমন্ত্রী ৷ মূলত ওই অঞ্চলে বিভিন্ন সময়ে আইনশৃঙ্খলা জনিত অস্থিরতা তৈরি হয়েছে ৷ সেই পরিস্থিতিকে দক্ষ হাতে সামলাতেই এই সিদ্ধান্ত নিয়েছিল রাজ্য সরকার ৷ একইভাবে এদিন খেয়াদহ ও আটঘরাকে কলকাতা পুলিশের আওতায় নিয়ে আসা হল ৷ এখন দেখার জনমানসে এর কি প্রভাব তৈরি হয় ৷

আরও পড়ুন:

  1. অষ্টম শ্রেণির ছাত্রীকে যৌন হেনস্থার অভিযোগ, নরেন্দ্রপুরে স্কুলে ভাঙচুর-শিক্ষকদের মারধর !
  2. ছাত্রমৃত্যুতে পুলিশি নিষ্ক্রিয়তার অভিযোগ, নরেন্দ্রপুর থানার সামনে বিজেপির বিক্ষোভ
  3. 'নরেন্দ্রপুর স্কুলের প্রধান শিক্ষক এখনও কেন গ্রেফতার হননি', প্রশ্ন হাইকোর্টের
Last Updated :Feb 6, 2024, 11:08 AM IST
ETV Bharat Logo

Copyright © 2024 Ushodaya Enterprises Pvt. Ltd., All Rights Reserved.