পুজোর আগেই চালু হতে পারে দেশের প্রথম নদীর নীচে মেট্রো, দ্বিতীয় দফার পরিদর্শনে সিসিআরএস

author img

By ETV Bharat Bangla Desk

Published : Feb 7, 2024, 11:28 AM IST

ETV BHARAT

CCRS Inspects Green Line of Kolkata Metro: আজ দ্বিতীয়দিন কলকাতা মেট্রোর গ্রিন লাইন অর্থাৎ, হুগলি নদীর নীচ দিয়ে আসা হাওড়া ময়দান থেকে এসপ্লানেড পর্যন্ত রুট পরিদর্শন করলেন চিফ কমিশনার অফ রেলওয়ে সেফটি ৷ মনে করা হচ্ছে সব ঠিকঠাক থাকলে আর কয়েকদিনের মধ্যে গ্রিন সিগন্যাল পাবে দেশের প্রথম নদীর নীচ দিয়ে তৈরি হওয়া মেট্রো ৷

কলকাতা, 7 ফেব্রুয়ারি: পুজোর আগেই চালু হয়ে যেতে পারে হাওড়া ময়দান থেকে এসপ্ল্যানেড পর্যন্ত হুগলি নদীর নিচ দিয়ে মেট্রো পরিষেবা ৷ আজ দ্বিতীয়বার কলকাতা মেট্রোর গ্রিন লাইনের এই অংশ পরিদর্শন করলেন চিফ কমিশনার অফ রেলওয়ে সেফটি জনক কুমার গর্গ ৷ আজ তিনি এবং পর্যবেক্ষক দলের বাকিরা হাওড়া ময়দান থেকে এসপ্ল্যানেড মেট্রো স্টেশন পর্যন্ত খুঁটিনাটি পরিদর্শন করলেন ৷

দেশের মধ্যে শহর কলকাতায় প্রথম ছুটেছিল মেট্রো রেল ৷ সময়টা ছিল 1984 সালের 24 অক্টোবর ৷ ফের এক ইতিহাসের সামনে কলকাতা মেট্রো ৷ নদীর নীচ দিয়ে মেট্রো চালিয়ে আবারও ইতিহাস গড়তে চলেছে এই কল্লোলিনী কলকাতা ৷ তাই ইস্ট-ওয়েস্ট মেট্রোর এই অংশের কাজ যে চারটিখানি কথা নয়, সেটা বলাই বাহুল্য ৷ এসেছে বহু বাধা ও বিপত্তি ৷ যদিও ইঞ্জিনিয়ার এবং মেট্রোর কর্মীদের অক্লান্ত পরিশ্রমে সফলভবে শেষ হয় সুড়ঙ্গ নির্মাণের কাজ ৷ শুধু সুড়ঙ্গের কাজই নয়, সফলভাবে সম্পূর্ণ হয়েছে সমগ্র প্রক্রিয়া ৷

এখন শুধুমাত্র রেলওয়ে সেফটি বোর্ডের সবুজ সংকেত পাওয়ার অপেক্ষা ৷ তারপরেই যাত্রী নিয়ে নদীর নীচ দিয়ে পশ্চিমবঙ্গের এক শহর থেকে মেট্রো পৌঁছে যাবে আরেক শহরে ৷ বাণিজ্যিকভাবে এই মেট্রো চালু করার জন্য সিসিআরএস পরিদর্শন ও তার ছাড়পত্র বাধ্যতামূলক ৷ তাই চূড়ান্ত অনুমতি দেওয়ার আগে কলকাতা মেট্রোর গ্রিন লাইনের এই অংশটি পরিদর্শন করে সব দিক থেকে একেবারে নিশ্চিত হতে চায় সিসিআরএস ৷ তাই পরপর দু’দিন হাওড়া ময়দান থেকে এসপ্ল্যানেড পর্যন্ত ট্রলি ইন্সপেকশন করলেন সিসিআরএস জনক কুমার গর্গ ৷

সকালে হাওড়া ময়দান মেট্রো স্টেশন থেকে তিনি পরিদর্শন শুরু করেন ৷ তিনি মেট্রোয় করে হাওড়া ময়দান থেকে এসপ্ল্যানেড পর্যন্ত সফরও করলেন ৷ পাশাপাশি, তিনি হাওড়া ময়দান, হাওড়া, মহাকরণ ও এসপ্ল্যানেড মেট্রো স্টেশনের প্রবেশ ও বেরনোর গেটগুলি ঘুরে দেখেন ৷ সঙ্গে এএফসি-পিসি গেটস, টিকিট সিস্টেম, কিউআর কোড ভিত্তিক টিকিট সিস্টেম, স্টেশন কন্ট্রোল রুম, এয়ার কন্ডিশনিং সিস্টেম, ট্র্যাকশন সাব-সিস্টেম, ব্যাক আপ কন্ট্রোল সিস্টেম, এসকেলেটর, লিফট, সাইনেজ বোর্ড, ফায়ার ডিটেকশন এন্ড সাপ্রেশন সিস্টেম, ফায়ার অ্যালার্ম, ইমার্জেন্সি টক ব্যাক সিস্টেম, ব্লু লাইট সিস্টেম পরিদর্শন করেন ৷

হওড়া ময়দান মেট্রো স্টেশনটি নদী পৃষ্ঠের অনেক নিচে অবস্থিত হলেও, গভীরতম মেট্রো স্টেশন হল হাওড়া মেট্রো স্টেশন ৷ এটা বলার অপেক্ষা রাখে না, যে একবার এই স্টেশনটি চালু হলে লক্ষ লক্ষ মানুষের দ্রুত যাতায়াতের পথ খুলে যাবে ৷ তাই এই স্টেশনের যাত্রী পরিষেবা ও অন্যান্য সুবিধাগুলি বিশেষভাবে পরীক্ষা করেন জনক গর্গ এবং তাঁর দল ৷ পূর্ব রেলওয়ে এবং দক্ষিণ-পূর্ব রেলওয়ের প্যাসেঞ্জার ইন্টার চেঞ্জিং পয়েন্টগুলিতে বিশেষ নজর দেওয়া হয়েছে ৷

সিবিটিসি সিগন্যালিং সিস্টেম পরীক্ষা করেন ৷ এর পাশাপাশি অ্যান্টি-কলিশন সিস্টেম পরীক্ষা করা হয় ৷ সন্ধের দিকে হাওড়া থেকে এসপ্ল্যানেড স্টেশন পর্যন্ত সর্বোচ্চ 91 কিলোমিটার গতিতে একটি রেক চালিয়ে স্পিড ট্রায়াল করা হয়েছে ৷ সব ঠিকঠাক থাকলে কয়েকদিনের মধ্যে চূড়ান্ত ছাড়পত্র এসে যাবে ৷ আর তারপরেই উদ্বোধন ৷ হাওড়া, কলকাতা-সহ রাজ্যের গুরুত্বপূর্ণ গণ পরিবহন ব্যবস্থার একটি হয়ে উঠবে এই মেট্রো রুট, তা বলার অপেক্ষা রাখে না ৷

আরও পড়ুন:

  1. পরিদর্শন সারলেন সেফটি কমিশনার, শীঘ্রই রেলের চাকা গড়াবে মেট্রোর তিনটি রুটে
  2. গঙ্গার নীচে মেট্রোসফর হয়ে উঠবে আরও সুন্দর, ঘন নীল আলোয় সাজছে যাত্রাপথ
  3. দক্ষিণেশ্বর স্কাইওয়াক ভাঙার কথাই বলেনি রেল, মমতার মন্তব্যে প্রতিক্রিয়া মেট্রো কর্তৃপক্ষের
ETV Bharat Logo

Copyright © 2024 Ushodaya Enterprises Pvt. Ltd., All Rights Reserved.