ওঁর সাহায্য-সমর্থন সবসময় পেয়েছি, প্রশাসক ডালমিয়ার প্রতি কৃতজ্ঞ সন্দীপ পাতিল

author img

By ETV Bharat Bangla Desk

Published : Feb 11, 2024, 9:57 PM IST

ETV BHARAT

Sandeep Patil on Jagmohan Dalmiya: জগমোহন ডালমিয়ার প্রতি কৃতজ্ঞতা ব্যক্ত করলেন প্রাক্তন ভারতীয় ক্রিকেটার তথা প্রাক্তন জাতীয় নির্বাচক সন্দীপ পাতিল ৷ জানালেন, প্রশাসক হিসেবে সবসময় ডালমিয়া তাঁকে সমর্থন ও সাহায্য করেছেন ৷

কলকাতা, 11 ফেব্রুয়ারি: ভারতীয় ক্রিকেটকে বিশ্বের কাছে সম্মানের শীর্ষে নিয়ে গিয়েছিল কপিল দেবের তিরাশির বিশ্বকাপ ৷ আর বিশ্বের দরবারে ভারতীয় ক্রিকেট বোর্ডের দাপট বেড়েছিল জগমোহন ডালমিয়ার হাত ধরেই ৷ তাঁর আমলেই খোলনলচে বদলে গিয়েছিল ভারতীয় ক্রিকেটের ৷ এমনটাই মনে করেন এক মুম্বইকর ৷ তিনি কপিল দেবের তিরাশির বিশ্বকাপ দলের অন্যতম সদস্য সন্দীপ পাতিল ৷ কলকাতায় এসে রবিবার প্রশাসক ডালমিয়ার ভারতীয় ক্রিকেটের প্রতি সেই অবদানের কথা শুনিয়ে গেলেন তিনি ৷

দক্ষিণ কলকাতার নর্দান পার্কে বালক সংঘ ক্লাবের শতবর্ষ উদযাপনের অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন সন্দীপ ৷ এই ক্লাব ও মাঠের সঙ্গে জগমোহন ডালমিয়ারও যোগ রয়েছে ৷ আর তাই সন্দীপের কথাতেও এল ডালমিয়া প্রসঙ্গ ৷ তিনি বলেন, "জগমোহন ডালমিয়ার ভারতীয় ক্রিকেটে প্রচুর অবদান ৷ ওঁর সাহায্য এবং সমর্থন সবসময় পেয়েছি ৷ সত্যিই অসাধারণ মানুষ ছিলেন ডালমিয়াজি ৷" শেষের কথাটি ডালমিয়াপুত্র তথা আইপিএলয়ের গর্ভনিং কাউন্সিলের সদস্য অভিষেক ডালমিয়াকে উদ্দেশ্য করে বলেন তিনি ৷

প্রাক্তন ভারতীয় ক্রিকেটারের পাশাপাশি কোচ ও প্রধান জাতীয় নির্বাচক দায়িত্ব সামলেছেন একসময় ৷ তবে, এখন খুব একটা ক্রিকেট দেখেন না বলে জানালেন সন্দীপ পাতিল ৷ ইংল্যান্ড সিরিজ নিয়ে তিনি নির্লিপ্ত ৷ বিরাট কোহলি ঘরের মাঠে গুরুত্বপূর্ণ সিরিজ থেকে সরে দাঁড়িয়েছেন জেনেও সন্দীপের কোনও প্রতিক্রিয়া নেই ৷ তিনি বলেন, "আমি এখন আর ক্রিকেট দেখি না ৷ আমি হ্যাপিলি রিটায়ার্ড ৷"

তবে, এদিন বালক সংঘের শতবর্ষ উদযাপন তাড়িয়ে উপভোগ করলেন সন্দীপ পাতিল ৷ বছরভর অনুষ্ঠান রয়েছে শতবর্ষ উদযাপনের ৷ কিন্তু, আজকের চমক ছিল, ঘুড়ি ওড়ানোর প্রতিযোগিতা ৷ আইপিএলের ধাঁচে চার দলের ঘুড়ি ওড়ানোর প্রতিযোগিতা ৷ তা শুরুর আগে ঘুড়ি ওড়ালেন সন্দীপ ৷ জানালেন, ছোটবেলায় তিনিও ঘুড়ি ওড়াতেন ৷ এখানেও চোখে রোদ চশমা দিয়ে ঘুড়ি ওড়ালেন ৷

শতবর্ষ প্রাচীন ক্লাবে দিলীপ দোশী, দেবাং গান্ধিরা খেলে গিয়েছেন জেনে বিস্মিত হন ৷ অনুষ্ঠানে বরুণ বর্মনের সঙ্গে দেখা হওয়ায় খুশি ৷ খেলোয়াড় জীবনে সন্দীপ পাতিল সাজঘর ভাগ করেছেন বাংলার এই প্রাক্তন পেসারের সঙ্গে ৷ তাই আজকের অনুষ্ঠান হয়ে উঠেছিল দুই বন্ধুর মিলন ক্ষেত্র ৷ ছিলেন সিএবির সভাপতি স্নেহাশিস গঙ্গোপাধ্যায়, আইপিএল গর্ভনিং কাউন্সিলের সদস‍্য অভিষেক ডালমিয়া, প্রাক্তন ক্রিকেটার বরুণ বর্মন, উদয় ভানু বন্দ্যোপাধ্যায়, সিএবির প্রাক্তন সচিব বিশ্বরূপ দে ৷ অনুষ্ঠানে সামিল হয়েছিলেন কলকাতার মেয়র ফিরহাদ হাকিম এবং অভিনেতা রঞ্জিত মল্লিক ৷ সকলেই বালক সংঘের মাঠ নিয়ে নস্টালজিক ৷

স্নেহাশিস গঙ্গোপাধ্যায় বলছিলেন, "আমার খেলোয়াড় জীবনে সিএবি লিগে প্রথম ম‍্যাচ খেলেছিলাম এই মাঠে। বালক সংঘের বিরুদ্ধে ৷ পরে যখন বাংলা দলে সুযোগ পেলাম তখন এই মাঠেই ইরানি ট্রফির প্রস্তুতি নিয়েছি ৷ বালক সংঘকে নিয়ে আমার অনেক স্মৃতি আছে ৷" অভিষেক ডালমিয়ার মুখে এই ক্লাবের সঙ্গে তাঁদের পরিবারের যোগাযোগের কথা শোনা গেল ৷ এই মাঠে তাঁর বাবা জগমোহন ডালমিয়ার ডাবল সেঞ্চুরিরও গল্প শোনালেন তিনি ৷

কলকাতার মেয়র ফিরহাদ হাকিমও বালক সংঘের প্রশংসা করলেন ৷ বিশ্বরূপ দে-র মুখে শোনা গেল সন্দীপ পাতিলের অজানা গল্প ৷ তিনি জানালেন, "একটা সময় যখন বাংলার জঙ্গল মহলে ঢোকা যেত না। সেই সময় সিএবির প্রতিনিধি হয়ে সন্দীপ পাতিল জঙ্গলমহলে গিয়ে ক্রিকেটের একটি ক‍্যাম্প শুরু করেছিলেন ৷ সন্দীপ পাতিল জেলার ক্রিকেট নিয়ে কাজ করেছেন ৷ প্রতিভা তুলে আনার ব‍্যাপারে তাঁর ভাবনাচিন্তা আছে ৷" সব মিলিয়ে মাঘ মাসের দুপুরে বালক সংঘের শতবর্ষ পালন অনুষ্ঠান পরিণত হল মিলনমেলায় ৷

আরও পড়ুন:

  1. অজিদের বিরুদ্ধে ফাইনালে ভারতের পেসারদের দাপট, ষষ্ঠ খেতাব জিততে দরকার 254 রান
  2. রঞ্জিতে বেকায়দায় বাংলা, আম্পায়ারিং নিয়ে বিস্ফোরক মনোজ তিওয়ারি
  3. বুমরার ইচ্ছে না জেনেই 'সাদা বলের বিশেষজ্ঞ' তকমা, মন্তব্য শাস্ত্রীর
ETV Bharat Logo

Copyright © 2024 Ushodaya Enterprises Pvt. Ltd., All Rights Reserved.