রাজনৈতিক-অর্থনৈতিক সংকটের মাঝেই ভোট পাকিস্তানে, মিলবে সমাধান ?

author img

By ETV Bharat Bangla Desk

Published : Feb 8, 2024, 8:52 AM IST

ETV Bharat

Pakistan Election 2024: আজ পাকিস্তানের 12 কোটিরও বেশি মানুষ দেশের প্রধানমন্ত্রী নির্বাচনে মতামত জানাবেন ৷ 266 আসনে 44টি রাজনৈতিক দল লড়ছে ৷ প্রতিবেশী রাষ্ট্রের অর্থনৈতিক পরিস্থিতি খুবই খারাপ ৷ রাজনৈতিক চাপানউতোরও চলছে ৷ সমাধান মিলবে নির্বাচনে ?

ইসলামাবাদ, 8 ফেব্রুয়ারি: অর্থনৈতিক সংকটের মধ্যেই আজ সংসদীয় নির্বাচন পাকিস্তানে ৷ দেশের 76 বছরের ইতিহাসে এটি 12তম নির্বাচন ৷ সংসদের নিম্নকক্ষে 266টি আসনের ভাগ্য নির্ধারণ করবে 12 কোটি 70 লক্ষ পাকিস্তানি ৷ এছাড়া মহিলা ও সংখ্যালঘু সম্প্রদায়ের জন্য অতিরিক্ত 70টি আসন সংরক্ষিত রয়েছে ৷ কখনও সামরিক অভ্যুত্থান, কখনও বা জঙ্গি হামলা, ভারত ও অন্য প্রতিবেশী দেশগুলির সঙ্গে সম্পর্কের টানাপোড়েনে এমনিতেই বিধ্বস্ত পাকিস্তান ৷ এর সঙ্গে রাজনৈতিক ওঠাপড়া তো রয়েছেই ৷ এরই মধ্যে এই নির্বাচনের মাধ্যমে দেশের পরবর্তী প্রধানমন্ত্রীকে নির্বাচিত করবে আমজনতা ৷

দেশজুড়ে হাজার হাজার নিরাপত্তারক্ষী মোতায়েন করা হয়েছে ৷ এদিকে নির্বাচনের আগের দিনই দক্ষিণ-পশ্চিম পাকিস্তানে দু'টি পার্টি কার্যালয়ে বোমা বিস্ফোরণের ঘটনা ঘটল ৷ মৃত্যু হয়েছে কমপক্ষে 30 জনের ৷ আহত বহু ৷ প্রথমটি হয় পাশিন জেলায় ৷ নির্দল প্রার্থীর দলীয় কার্যালয়ে ৷ অন্ততপক্ষে 18 জন প্রাণ হারিয়েছেন ৷ দ্বিতীয়টি হয় 130 কিমি দূরে জামিয়াত উলেমা ইসলাম পার্টি অফিসে ৷ এই ঘটনায় কমপক্ষে 12 জনের মৃত্যু হয়েছে ৷ এই বোমা বিস্ফোরণের দায় স্বীকার করেছে আইএস জঙ্গি সংগঠন ৷

Bomb blast in Pakistan ahead of poll
ভোটের আগে বোমা বিস্ফোরণ পাকিস্তানে

এদিকে দেশে চলছে চরম রাজনৈতিক ও অর্থনৈতিক সংকট ৷ 44টি রাজনৈতিক দল এই নির্বাচনে লড়ছে ৷ গত বছরের অক্টোবরে দেশে ফিরেছেন প্রাক্তন প্রধানমন্ত্রী নওয়াজ শরিফ ৷ দেশে ফেরার পরেই তাঁর বিরুদ্ধে সব সাজা মকুব করা হয়েছে ৷ তাঁর পাকিস্তান মুসলিম লিগ বা পিএমএল এই নির্বাচনে অন্যতম গুরুত্বপূর্ণ দল ৷ পাশাপাশি পাকিস্তানের তরুণ রাজনীতিবিদ তথা শেহবাজ শরিফ সরকারের বিদেশমন্ত্রী বিলওয়াল জারদারি ভুট্টো লড়ছেন এই নির্বাচনে ৷ এই দু'টি দলই একে অপরের চিরকালীন প্রতিদ্বন্দ্বী ৷ যদিও পাকিস্তান-তেহরিক-ই-ইনসাফ সরকারের বিরোধীতায় দুই বিরোধী দল জোট বেঁধেছিল ৷

2022 সালে এপ্রিল মাসে প্রাক্তন প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান অনাস্থা ভোটাভুটিতে পরাজিত হয়ে পাকিস্তানের মসনদ ছাড়েন ৷ 2018 সালের শেষ নির্বাচনে তিনিই দেশের নির্বাচিত প্রধানমন্ত্রী হয়েছিলেন ৷ তবে ক্রিকেটার তথা রাজনৈতিক নেতা ইমরান খান এখন কারাবাসে ৷ এমনকী সুপ্রিম কোর্টের নির্দেশে তিনি তাঁর পাকিস্তান-ই-তেহরেকির প্রচারেও অংশ নিতে পারেননি ৷ তবে কারাগারের নেপথ্যে থেকেও দলের সবকিছুই তিনি পরিচালনা করছেন ৷ পাকিস্তানে তাঁর অনুগামীর সংখ্যাও নেহাত কম নয় ৷ তাঁর সমর্থকরা রীতিমতো আতঙ্কের পরিবেশ তৈরি করে রেখেছে দেশে ৷ তবে ইমরান খান প্রতিদ্বন্দ্বিতা না-করায় একদিকে নওয়াজ শরিফের সুবিধে হয়েছে বলেই মনে করছে রাজনৈতিক বিশেষজ্ঞ মহল ৷

আরও পড়ুন:

  1. পাকিস্তানে ভোটের আগের দিনই ভয়াবহ বিস্ফোরণ, নিহত অন্তত 24
  2. উত্তর পশ্চিম পাকিস্তানের থানায় জঙ্গি হামলা, নিহত অন্তত 10
  3. পাকিস্তানের নির্বাচনে নতুন রাজনৈতিক দল, নেপথ্যে কি মুম্বই হামলার মূলচক্রী হাফিজ সঈদ?
ETV Bharat Logo

Copyright © 2024 Ushodaya Enterprises Pvt. Ltd., All Rights Reserved.