ETV Bharat / entertainment

সলমনের বাড়ির বাইরে গুলি-কাণ্ডে গ্রেফতার লরেন্স বিষ্ণোই গ্যাংয়ের সদস্য - Firing outside Salman Khan home

author img

By ETV Bharat Bangla Team

Published : May 7, 2024, 3:34 PM IST

Firing outside Salman Khan's home: সলমন খানের বাড়ির বাইরে গুলিচালনার ঘটনায় গ্রেফতার হলেন লরেন্স বিষ্ণোই গ্যাংয়ের সদস্য মহম্মদ রফিক চৌধুরী (37)।

ETV BHARAT
লরেন্স বিষ্ণোই গ্যাংয়ের সদস্য গ্রেফতার (সলমন খানের ফাইল চিত্র)

মুম্বই, 7 মে: বলিউডের সুপারস্টার সলমন খানের বাড়ির বাইরে গুলি চালানোর ঘটনায় জড়িত শ্যুটারদের আর্থিক সহায়তা দেওয়ার অভিযোগে লরেন্স বিষ্ণোই গ্যাংয়ের একজন সদস্যকে গ্রেফতার করল মুম্বই ক্রাইম ব্রাঞ্চ ৷ রাজস্থান থেকে তাঁকে গ্রেফতার করা হয়েছে বলে মঙ্গলবার আধিকারিকরা জানিয়েছেন ৷ একজন আধিকারিক জানান, অভিযুক্তের নাম মহম্মদ রফিক চৌধুরী (37)। গুলিবর্ষণের মামলায় এই নিয়ে পাঁচজনকে গ্রেফতার করা হল বলে জানান তিনি ৷

14 এপ্রিল মুম্বইয়ের বান্দ্রা এলাকায় গ্যালাক্সি অ্যাপার্টমেন্টে সলমন খানের বাসভবনের বাইরে দুই মোটরসাইকেল আরোহী গুলি চালিয়ে ঘটনাস্থল থেকে পালিয়ে যায় । আধিকারিকের কথায়, ওই মামলায় ধৃতদের জিজ্ঞাসাবাদ করে মহম্মদ রফিকের ভূমিকা প্রকাশ্যে আসে । তিনি লরেন্স বিষ্ণোই গ্যাংয়ের সদস্য এবং অভিযুক্ত শ্যুটার - সাগর পাল ও ভিকি গুপ্তার সঙ্গে তাঁর সরাসরি যোগাযোগ ছিল বলে জানিয়েছেন আধিকারিকরা ৷

রফিক সাগর ও ভিকিকে একটি মোটরসাইকেল কেনার জন্য এবং একটি বাড়ি ভাড়া দেওয়ার জন্য আর্থিক সহায়তা করেছিলেন বলে অভিযোগ রয়েছে ৷ তিনি সলমনের বাসভবনের আশপাশে পাঁচবারেরও বেশি রেকি করেছেন বলেও দাবি আধিকারিকের ৷ গুলি চালানোর ঘটনার আগে রফিক নভি মুম্বইয়ের পানভেলে গিয়েছিলেন এবং সেখানে সাগর ও ভিকির সঙ্গে ছিলেন বলে জানা যাচ্ছে ৷

গুলি চালানোর ষড়যন্ত্র তৈরি হওয়ার পর থেকে রফিক অভিযুক্ত ব্যক্তিদের সমস্ত সহায়তা প্রদান করেছিলেন বলে জানিয়েছেন আধিকারিক ৷ রফিকের অবস্থান সম্পর্কে একটি সুনির্দিষ্ট তথ্য পাওয়ার পরে ক্রাইম ব্রাঞ্চের একটি দলকে রাজস্থানে পাঠানো হয়েছিল এবং রফিককে নাগৌর জেলা থেকে গ্রেপ্তার করা হয় ৷ সলমনের বাড়ির বাইরে গুলি চালানোর ঘটনায় মুম্বই পুলিশের হাতে গ্রেফতার হওয়া পঞ্চম ব্যক্তি তিনি ৷ ধৃতদের মধ্যে একজন অনুজ থাপান, যার বিরুদ্ধে শ্যুটারদের অস্ত্র সরবরাহ করার অভিযোগ রয়েছে ৷ তিনি 1 মে একটি পুলিশ লক-আপে নিজের গলায় ফাঁস দিয়ে আত্মহত্যার চেষ্টার করেন বলে অভিযোগ ৷

লরেন্স বিষ্ণোই বর্তমানে গুজরাতের আমেদাবাদের সবরমতী কেন্দ্রীয় সংশোধনাগারে বন্দি এবং তাঁর ছোট ভাই আনমোল বিষ্ণোই, যিনি আমেরিকায় বা কানাডায় আছেন বলে মনে করা হয়, তাঁরও গুলি চালানোর মামলায় নাম রয়েছে । (পিটিআই)

আরও পড়ুন:

  1. সলমনের বাড়ি লক্ষ্য করে গুলি, জেলে আত্মহত্যার চেষ্টা অভিযুক্তের; মৃত্যু হাসপাতালে
  2. সলমনের বাড়ির বাইরে গুলি, লরেন্সের ভাইয়ের নামে লুকআউট সার্কুলার জারি
  3. সলমন খানের বাড়ি লক্ষ্য করে গুলি, 30 এপ্রিল পর্যন্ত ক্রাইম ব্রাঞ্চের হেফাজতে অভিযুক্তরা

মুম্বই, 7 মে: বলিউডের সুপারস্টার সলমন খানের বাড়ির বাইরে গুলি চালানোর ঘটনায় জড়িত শ্যুটারদের আর্থিক সহায়তা দেওয়ার অভিযোগে লরেন্স বিষ্ণোই গ্যাংয়ের একজন সদস্যকে গ্রেফতার করল মুম্বই ক্রাইম ব্রাঞ্চ ৷ রাজস্থান থেকে তাঁকে গ্রেফতার করা হয়েছে বলে মঙ্গলবার আধিকারিকরা জানিয়েছেন ৷ একজন আধিকারিক জানান, অভিযুক্তের নাম মহম্মদ রফিক চৌধুরী (37)। গুলিবর্ষণের মামলায় এই নিয়ে পাঁচজনকে গ্রেফতার করা হল বলে জানান তিনি ৷

14 এপ্রিল মুম্বইয়ের বান্দ্রা এলাকায় গ্যালাক্সি অ্যাপার্টমেন্টে সলমন খানের বাসভবনের বাইরে দুই মোটরসাইকেল আরোহী গুলি চালিয়ে ঘটনাস্থল থেকে পালিয়ে যায় । আধিকারিকের কথায়, ওই মামলায় ধৃতদের জিজ্ঞাসাবাদ করে মহম্মদ রফিকের ভূমিকা প্রকাশ্যে আসে । তিনি লরেন্স বিষ্ণোই গ্যাংয়ের সদস্য এবং অভিযুক্ত শ্যুটার - সাগর পাল ও ভিকি গুপ্তার সঙ্গে তাঁর সরাসরি যোগাযোগ ছিল বলে জানিয়েছেন আধিকারিকরা ৷

রফিক সাগর ও ভিকিকে একটি মোটরসাইকেল কেনার জন্য এবং একটি বাড়ি ভাড়া দেওয়ার জন্য আর্থিক সহায়তা করেছিলেন বলে অভিযোগ রয়েছে ৷ তিনি সলমনের বাসভবনের আশপাশে পাঁচবারেরও বেশি রেকি করেছেন বলেও দাবি আধিকারিকের ৷ গুলি চালানোর ঘটনার আগে রফিক নভি মুম্বইয়ের পানভেলে গিয়েছিলেন এবং সেখানে সাগর ও ভিকির সঙ্গে ছিলেন বলে জানা যাচ্ছে ৷

গুলি চালানোর ষড়যন্ত্র তৈরি হওয়ার পর থেকে রফিক অভিযুক্ত ব্যক্তিদের সমস্ত সহায়তা প্রদান করেছিলেন বলে জানিয়েছেন আধিকারিক ৷ রফিকের অবস্থান সম্পর্কে একটি সুনির্দিষ্ট তথ্য পাওয়ার পরে ক্রাইম ব্রাঞ্চের একটি দলকে রাজস্থানে পাঠানো হয়েছিল এবং রফিককে নাগৌর জেলা থেকে গ্রেপ্তার করা হয় ৷ সলমনের বাড়ির বাইরে গুলি চালানোর ঘটনায় মুম্বই পুলিশের হাতে গ্রেফতার হওয়া পঞ্চম ব্যক্তি তিনি ৷ ধৃতদের মধ্যে একজন অনুজ থাপান, যার বিরুদ্ধে শ্যুটারদের অস্ত্র সরবরাহ করার অভিযোগ রয়েছে ৷ তিনি 1 মে একটি পুলিশ লক-আপে নিজের গলায় ফাঁস দিয়ে আত্মহত্যার চেষ্টার করেন বলে অভিযোগ ৷

লরেন্স বিষ্ণোই বর্তমানে গুজরাতের আমেদাবাদের সবরমতী কেন্দ্রীয় সংশোধনাগারে বন্দি এবং তাঁর ছোট ভাই আনমোল বিষ্ণোই, যিনি আমেরিকায় বা কানাডায় আছেন বলে মনে করা হয়, তাঁরও গুলি চালানোর মামলায় নাম রয়েছে । (পিটিআই)

আরও পড়ুন:

  1. সলমনের বাড়ি লক্ষ্য করে গুলি, জেলে আত্মহত্যার চেষ্টা অভিযুক্তের; মৃত্যু হাসপাতালে
  2. সলমনের বাড়ির বাইরে গুলি, লরেন্সের ভাইয়ের নামে লুকআউট সার্কুলার জারি
  3. সলমন খানের বাড়ি লক্ষ্য করে গুলি, 30 এপ্রিল পর্যন্ত ক্রাইম ব্রাঞ্চের হেফাজতে অভিযুক্তরা
ETV Bharat Logo

Copyright © 2024 Ushodaya Enterprises Pvt. Ltd., All Rights Reserved.