বাবার বদলে মৃত্যুর শংসাপত্র এল ছেলের নামে ! মেদিনীপুর মেডিক্যাল কলেজের ঘটনায় চাঞ্চল্য

author img

By ETV Bharat Bangla Desk

Published : Jan 21, 2024, 5:33 PM IST

ETV BHARAT

Medinipur Medical College Issues Wrong Death Certificate: শংসাপত্রে মৃত বাবার বদলে ছেলের নাম ৷ মেদিনীপুর মেডিক্যাল কলেজ ও হাসপাতালের ঘটনায় চাঞ্চল্য ছড়িয়েছে ৷ যদিও, হাসপাতাল কর্তৃপক্ষের দাবি পুরোটাই হয়েছে যান্ত্রিক ত্রুটির কারণে।

মৃত বাবার বদলে ছেলের নামে মৃত্যু শংসাপত্র এল চন্দ্রকোনায়

চন্দ্রকোনা, 21 জানুয়ারি: মৃত বাবার বদলে ছেলের নামে মৃত্যুর শংসাপত্র ইস্যু করল হাসপাতাল ৷ ঘটনাটি ঘটেছে পশ্চিম মেদিনীপুরের চন্দ্রকোনায় ৷ আর এই গাফিলতির অভিযোগ উঠেছে মেদিনীপুর মেডিক্যাল কলেজ ও হাসপাতালের বিরুদ্ধে ৷ গত 17 জানুয়ারি স্বাস্থ্য দফতরের তরফে মোবাইলে আসা লিংক থেকে মৃত্যুর শংসাপত্র ডাউনলোড করার পর বিষয়টি নজের আসে ৷ তবে হাসপাতাল কর্তৃপক্ষের দাবি পুরোটাই টেকনিক্যাল সমস্যার কারণে হয়েছে ৷ মৃতের পরিবার হাসপাতালে এসে অভিযোগ জানালে সংশোধন করে দেওয়া হবে ৷

জানা গিয়েছে, পশ্চিম মেদিনীপুরে চন্দ্রকোনা পৌরসভার 9 নম্বর ওয়ার্ডের কমরগঞ্জ গ্রামের বাসিন্দা ছিলেন পেশায় কৃষক উত্তম নন্দী (54) ৷ 2023 সালের 17 নভেম্বর বিষপান করেন তিনি ৷ পরিবারের তরফে তাঁকে মেদিনীপুর মেডিক্যাল কলেজে ভরতি করানো হয় ৷ ওইদিন রাতেই হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মৃত্যু হয় উত্তম নন্দীর ৷ তাঁর পরিবারে স্ত্রী এবং দুই ছেলে রয়েছেন ৷ মৃতের ছোট ছেলে বলরাম নন্দীর নামে এই শংসাপত্রটি এসেছে ৷ কিন্তু, কীভাবে ?

এ নিয়ে বলরাম নন্দী সংবাদমাধ্য়মে জানিয়েছেন, উত্তম নন্দীর মৃত্যুর পর মেদিনীপুর মেডিক্যাল কলেজ ও হাসপাতালে মৃত্যুর শংসাপত্রের জন্য আবেদন করা হয় ৷ সেখানে পরিবারের সদস্য হিসেবে ছোট ছেলে বলরামের নাম ও ফোন নম্বর দেওয়া ছিল ৷ 17 জানুয়ারি তাঁর ফোনে একটি মেসেজ আসে স্বাস্থ্য দফতরের তরফে ৷ সেখানে একটি লিংক দেওয়া ছিল ৷ সেই লিংক থেকে উত্তম নন্দীর মৃত্যু শংসাপত্র ডাউনলোড করে তাঁর প্রিন্ট বের করেন বলরাম ৷ তবে, তিনি সেই মৃত্যু শংসাপত্রে কার নাম লেখা রয়েছে তা দেখেননি তিনি ৷

বিষয়টি নজরে আসে গতকাল। বলরাম তাঁর মাকে নিয়ে গ্যাসের কানেকশনে নাম বদলের জন্য গেলে ব্যাপারটি জানা যায় ৷ অভিযোগ, সেখানে গিয়ে তাঁরা জানতে পারেন, মৃত্যুর শংসাপত্রে উত্তম নন্দীর বদলে তাঁর ছেলে বলরাম নন্দীর নাম লেখা ৷ বিষয়টি জানতে পেরে মাথায় বাজ পড়ার জোগাড় হয়েছে বলরামের ৷ এই ঘটনার জেরে গ্যাস কানেকশন-সহ একাধিক কাজ আটকে গিয়েছে ৷ যদিও, এ বিষয়টিকে টেকনিক্যাল ত্রুটি বলে দাবি করেছে হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ ৷

মেদিনীপুর মেডিক্যাল কলেজ ও হাসপাতালের সুপার চিকিৎসক জয়ন্ত কুমার রাউত বলেন, "টেকনিক্যাল কোনও সমস্যার জন্য এই ঘটনা ঘটেছে ৷ যার ফলে বাবার জায়গায় ছেলের নাম, ছেলের নামের জায়গায় বাবার নাম বসে গিয়েছে ৷ ওই পরিবার আমাদের সঙ্গে এখনও পর্যন্ত কোনও অভিযোগ করেনি ৷ তবে, ওঁরা যদি যোগাযোগ করেন, অবশ্যই আমরা ঠিক করে দেব ৷"

আরও পড়ুন:

  1. মৃত্যুর শংসাপত্র ছাড়াই দিনের পর দিন শবদাহ হচ্ছে হাঁসখালির শ্মশানে
  2. জন্ম-মৃত্যু শংসাপত্র নিয়ে সমস্যা, সংশোধনী প্রস্তাব কলকাতা পৌরনিগমের
  3. স্পেশাল কেয়ার ওয়ার্ডে রোগীর মৃত্যুকে ঘিরে উত্তেজনা, আত্মহত্যার দাবি হাসপাতালের; মানতে নারাজ পরিবার
ETV Bharat Logo

Copyright © 2024 Ushodaya Enterprises Pvt. Ltd., All Rights Reserved.