Sharad Pawar: এনসিপি-তে কোনও বিভাজন নেই, অজিতরা ভিন্ন অবস্থান নিয়েছেন; মন্তব্য পাওয়ারের

author img

By ETV Bharat Bangla Team

Published : Aug 25, 2023, 12:39 PM IST

Sharad Pawar

Sharad Pawar on Spilt in NCP: এনসিপি-তে কোনও বিভাজন নেই বলে জল্পনা বাড়ালেন শরদ পাওয়ার ৷ বিজেপির সঙ্গে অজিত পাওয়ারদের হাত মেলানোর বিষয়টিকে তিনি এনসিপির একাংশের ভিন্ন অবস্থান নেওয়া বলেই মনে করেন বর্ষীয়ান এই মারাঠা রাজনীতিক ৷

বারামতি, 25 অগস্ট: মহারাষ্ট্র তথা জাতীয় রাজনীতিতে নয়া জল্পনার উপাদান যোগ করলেন শরদ পাওয়ার ৷ বর্ষীয়ান এই মারাঠা রাজনীতিক দাবি করেছেন, ন্যাশনালিস্ট কংগ্রেস পার্টি বা এনসিপি-তে কোনও বিভাজন নেই ৷ নাম না করে তিনি ভাইপো অজিত পাওয়ারের প্রসঙ্গ টেনেছেন ৷ অজিতদের বিজেপির সঙ্গে হাত মেলানোর ঘটনাকে তিনি ‘দলের একাংশের ভিন্ন অবস্থান’ বলে ব্যাখ্যা করেছেন ৷

সংবাদসংস্থা এএনআই-কে এনসিপি-র প্রতিষ্ঠাতা শরদ পাওয়ার বলেন, "এতে কোনও দ্বন্দ্ব নেই যে তিনি (অজিত পাওয়ার) আমাদের নেতা, এনসিপিতে কোনও বিভাজন নেই । কীভাবে একটি দলে বিভাজন ঘটে ? এটি তখনই হয়, যখন দলের একটি বড় অংশ জাতীয়স্তরে দল থেকে আলাদা হয়ে যায় । কিন্তু এখন এনসিপি-তে কোনও বিভাজন নেই ৷”

প্রসঙ্গত, 1999 সালে কংগ্রেস থেকে বহিষ্কৃত হওয়ার পর পিএ সাংমা ও তারিক আনোয়ারের সঙ্গে এনসিপি প্রতিষ্ঠা করেছিলেন শরদ পাওয়ার ৷ প্রথম দিন থেকেই তিনি দলের সভাপতি ৷ মাস দুয়েক আগে তাঁর ভাইপো অজিত পাওয়ার এবং তাঁর দীর্ঘদিনের ঘনিষ্ঠ প্রফুল প্যাটেল দলের একটা অংশকে নিয়ে বিজেপির সঙ্গে হাত মেলান ৷ শিবসেনা-বিজেপি সরকারে উপ-মুখ্যমন্ত্রী হিসেবে শপথ নেন অজিত পাওয়ার ৷

আরও পড়ুন: এনসিপি নাম-প্রতীক বিতর্ক, শরদ-অজিতকে আরও সময় দিল নির্বাচন কমিশন

তার পর অজিত-প্রফুলদের বিরুদ্ধে এনসিপি-র পাওয়ার ঘনিষ্ঠরা অনেক বিষোদগার করেছেন ৷ কিন্তু শরদ পাওয়ারকে কখনও অজিত বা প্রফুলের বিরুদ্ধে কোনও কথা বলতে দেখা যায়নি ৷ উল্টে দু’একবার বৈঠকও হয়েছে তাঁদের মধ্যে ৷ গত 1 অগস্ট পুনেতে এক অনুষ্ঠানে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি ও শরদ পাওয়ারের সঙ্গে একই মঞ্চে ছিলেন অজিত ৷

যদিও বিজেপির সঙ্গে হাত মেলানোর পর থেকেই এনসিপি-র কর্তৃত্ব হাতে নেওয়ার চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছে অজিত শিবির ৷ নির্বাচন কমিশনে আবেদনও করেছে তারা ৷ তবে অজিত, প্রফুল বা তাঁদের শিবিরের সকলেই শরদ পাওয়ারকেই তাঁদের নেতা হিসেবে বারবার জানিয়েছেন ৷ সম্প্রতি শোনা গিয়েছিল যে অজিতদের তরফ থেকে শরদ শিবিরকেও বিজেপির দিকে চলে আসার আবেদন জানানো হয় ৷

কিন্তু রাজ্যসভার সাংসদ তথা মারাঠা রাজনীতির স্ট্রংম্যান এখনও পর্যন্ত বিজেপি বিরোধী ইন্ডিয়া জোটের শরিক ৷ প্রতিটি বৈঠকেই তিনি উপস্থিত ছিলেন ৷ চলতি মাসের শেষে মুম্বইতেই বসতে চলেছে এই জোটের তৃতীয় বৈঠক ৷ সেই বৈঠকের ব্যবস্থাপকও শরদ শিবির ৷ কিন্তু তার আগেই 82 বছর বয়সী এই রাজনীতিক কেন এই মন্তব্য করলেন, তা নিয়ে প্রশ্ন উঠতে শুরু করেছে ৷

আরও পড়ুন: শরদ-অজিতের বৈঠকের খবরে নয়া জল্পনা মহারাষ্ট্রের রাজনীতিতে

প্রাক্তন এই কেন্দ্রীয় মন্ত্রী যেমন অজিতদের পদক্ষেপকে বিভাজনের বদলে ভিন্ন অবস্থান দেখছেন, তেমনই তিনি মনে করেন গণতন্ত্রে এমন করার অধিকার রয়েছে ৷ তাছাড়া শুধু তিনি নন, তাঁর মেয়ে এবং বর্তমানে মহারাষ্ট্রের বারামতির সাংসদ সুপ্রিয়া সুলেও বাবার সঙ্গে সহমত পোষণ করেছেন ৷

স্বাভাবিকভাবে জল্পনা আরও বেড়েছে ৷ প্রশ্ন উঠছে, তাহলে কি ভাইপো অজিতের সঙ্গে কাকা শরদের সম্পর্কের ‘পাওয়ার’ কি আবার বেড়েছে ? সত্যিই যদি তাই হয়, তাহলে এই দূরত্ব মেটার ফল কী হবে ? অজিত বিজেপিকে ছেড়ে আবার কাকার কাছে ফিরবেন নাকি শরদ পাওয়ার-সুপ্রিয়া সুলে-রা নরেন্দ্র মোদির প্রতি নিজেদের সমর্থন জানাবেন ?

ETV Bharat Logo

Copyright © 2024 Ushodaya Enterprises Pvt. Ltd., All Rights Reserved.