দেশে প্রথম হাইপারভেলোসিটি এক্সপ্যানশন টানেল সুবিধা, ইতিহাস আইআইটি কানপুরের

author img

By ETV Bharat Bangla Desk

Published : Feb 6, 2024, 7:08 AM IST

Updated : Feb 6, 2024, 8:49 AM IST

Etv Bharat

Hypervelocity Expansion Tunnel Facility: হাইপারভেলোসিটি এক্সপ্যানশন টানেল সুবিধা তৈরি করে হাইপারসনিক টেস্টিং ক্ষমতাসম্পন্ন দেশের তালিকায় নাম তুলল ভারত ৷ কানপুর আইআইটি নিজেদের গবেষণা দিয়ে আরও একবার ইতিহাস তৈরি করল বলে দাবি অধ্যাপকদের ৷

কানপুর, 6 ফেব্রুয়ারি: বিশ্বে মাত্র কয়েকটি দেশ আছে যেগুলোকে হাইপারসনিক টেস্টিং ক্ষমতাসম্পন্ন দেশের মধ্যে ধরা হয় । এবার ভারতও পূর্ণ শক্তি নিয়ে তার মধ্যে নাম অন্তর্ভূক্ত করল ৷ আর এটি সম্ভব হয়েছে আইআইটি কানপুর দেশে প্রথম হাইপারভেলোসিটি এক্সপ্যানশন টানেল সুবিধা তৈরি করায় ৷ পরীক্ষার পাশাপাশি এটি ক্যাম্পাসে সঠিকভাবে স্থাপনে বিশেষজ্ঞরা সম্পূর্ণভাবে সফল হয়েছেন ।

এটিকে বর্তমানে S-2 সুবিধা নাম দেওয়া হয়েছে ৷ এর সাহায্যে ভবিষ্যতে যানবাহন, স্ক্র্যামজেট ফ্লাইট, ব্যালিস্টিক ক্ষেপণাস্ত্র ইত্যাদি বায়ুমণ্ডলে প্রবেশের সময় হাইপারসনিক অবস্থার সম্মুখীন হতে পারে । কারণ, এই টানেল প্রতি সেকেন্ডে তিন থেকে 10 কিলোমিটারের মধ্যে ফ্লাইটের গতি তৈরি করতে সক্ষম । আইআইটি কানপুরের ডিরেক্টর অধ্যাপক ড. এস গণেশের মতে, আইআইটি কানপুরের অধ্যাপকরা তাদের গবেষণা দিয়ে আরও একবার ইতিহাস তৈরি করেছেন ।

আইআইটি কানপুরের এরোস্পেস বিভাগ ও ফটোনিক্স সেন্টারের সহযোগী অধ্যাপক ইব্রাহিম সুগারনো বলেন, "বর্তমানে এই টানেলের নাম দেওয়া হয়েছে S-2 সুবিধা । এটি 24 মিটার লম্বা ৷ এই টানেল এরোস্পেস ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগের ভিতরে আইআইটি কানপুরের হাইপারসনিক এক্সপেরিমেন্টাল অ্যারোডাইনামিকস ল্যাবরেটরিতে অবস্থিত ।"

তিনি আরও বলেন, "এস-2 নির্মাণ খুবই চ্যালেঞ্জিং ছিল । এর জন্য প্রয়োজন পদার্থবিদ্যা এবং নির্ভুল প্রকৌশল সম্পর্কে গভীর জ্ঞানের দরকার হয়েছিল । সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ এবং চ্যালেঞ্জিং দিকটি ছিল 'ফ্রি পিস্টন ড্রাইভার' সিস্টেমকে নিখুঁত করা ৷ যার জন্য 6.5 মিটারের নিচে 20-35 বায়ুমণ্ডলের মধ্যে উচ্চ চাপে 150-200 m/s গতিতে একটি কম্প্রেশন টিউবে একটি পিস্টন ফায়ার করা প্রয়োজন । শেষ পর্যন্ত এটিকে সম্পূর্ণ বন্ধ বা 'সফট ল্যান্ডিং'-এ নিয়ে আসাও প্রয়োজন ছিল । যাই হোক, নিজেদের দক্ষতার সঙ্গে আমরা এটি কাটিয়ে উঠতে সক্ষম হয়েছি । আমাদের দল এই অনন্য বৈশিষ্ট্যটি ডিজাইন, তৈরি এবং পরীক্ষা করতে পেরে গর্বিত ৷ যা অভিজাত বৈশ্বিক হাইপারসনিক গবেষণা সম্প্রদায়ে ভারতের অবস্থানকে শক্তিশালী করবে ।"

অ্যারোনটিক্যাল রিসার্চ অ্যান্ড ডেভেলপমেন্ট বোর্ড (এআরডিবি), বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিভাগ এবং আইআইটি কানপুরের অর্থায়ন এবং সহায়তায় তিন বছরের মধ্যে দেশীয়ভাবে S-2 তৈরি করা হয়েছে ৷

আরও পড়ুন :

  1. ভার্চুয়াল রিয়েলিটি গ্রুমিং ক্রমে বিপদ বাড়াচ্ছে, কীভাবে সন্তানদের সুরক্ষিত রাখবেন ?
  2. ফেসলক-ফিঙ্গারপ্রিন্ট অতীত, নয়া প্রযুক্তি জমানায় মোবাইল আনলক হবে হৃদস্পদনে
  3. ওয়াই-ফাইয়ের বিকল্প তৈরি করে চমক দিলেন ওড়িশার পড়ুয়া
Last Updated :Feb 6, 2024, 8:49 AM IST
ETV Bharat Logo

Copyright © 2024 Ushodaya Enterprises Pvt. Ltd., All Rights Reserved.