তিনদিন আগেও মেলেনি অ্যাডমিট, প্রধান শিক্ষককে কাঠগড়ায় তুলে আত্মহত্যার হুমকি উচ্চমাধ্যমিক পরীক্ষার্থীর

author img

By ETV Bharat Bangla Desk

Published : Feb 12, 2024, 3:45 PM IST

Higher Secondary Examination

Higher Secondary Examination 2024: তিনদিন পরেই শুরু উচ্চমাধ্যমিক পরীক্ষা ৷ এখনও অ্যাডমিট কার্ড হাতে পাননি ছাত্রী ৷ প্রধান শিক্ষককে কাঠগড়ায় তুলে আত্মহত্যার হুমকি দিল মালদার এক উচ্চমাধ্যমিক পরীক্ষার্থী ৷

মালদা, 12 ফেব্রুয়ারি: তিনদিন পরই শুরু হচ্ছে এ বছরের উচ্চমাধ্যমিক পরীক্ষা ৷ কিন্তু এখনও হাতে অ্যাডমিট কার্ড পায়নি হরিশ্চন্দ্রপুর-1 নম্বর ব্লকের এক উচ্চমাধ্যমিক পরীক্ষার্থী ৷ অ্যাডমিট কার্ড পেতে একাধিকবার স্কুল কর্তৃপক্ষের সঙ্গে যোগাযোগ করেছে সে ৷ কিন্তু স্কুলের তরফে বলা হচ্ছে, সে নাকি পরীক্ষার ফর্ম ফিল-আপই করেননি ৷ অথচ তাঁর কাছে রয়েছে রেজিস্ট্রেশন সার্টিফিকেট ৷ পরীক্ষা দিতে না-পারলে আত্মহত্যার হুমকি দিয়েছে সে ৷ গোটা ঘটনায় স্কুলের প্রধান শিক্ষকের বিরুদ্ধে বিডিও'র কাছে অভিযোগ দায়ের করেছে পরীক্ষার্থীর পরিবারের সদস্যরা ৷

কনুয়া ভবানীপুরের ওই পড়ুয়ার মা স্কুলেই মিড ডে মিলের রাঁধুনির কাজ করেন ৷ বাবা পেশায় শ্রমিক ৷ নিতান্তই গরিব পরিবার ৷ এই অবস্থায় মেয়ের উচ্চমাধ্যমিক পরীক্ষার অ্যাডমিট কার্ড না-আসায় হতাশ তাঁরাও ৷ ছাত্রীর মা বলেন, "মেয়ের অ্যাডমিট কার্ড না-আসায় আমরা প্রথমে স্কুলের প্রধান শিক্ষকের দ্বারস্থ হই ৷ তাঁকে সব বলি ৷ কিন্তু তিনি কোনও পদক্ষেপ নেননি ৷ উলটে বলছেন, আমরা যা ইচ্ছে করতে পারি ৷ এই ঘটনায় মেয়ে মানসিকভাবে ভেঙে পড়েছে ৷ ও কিছু করে ফেললে তার দায় কে নেবে? তেমন হলে কিন্তু প্রধান শিক্ষকই দায়ী থাকবেন ৷ আমরা গরিব মানুষ ৷ তার মধ্যেও বাচ্চাদের শিক্ষিত করার চেষ্টা করছি ৷ সরকার বলছে, মেয়েদের আরও পড়াও ৷ কিন্তু শিক্ষকরা যদি এমন গাফিলতি করেন, তবে আমাদের মতো গরিব ঘরের মেয়েদের উচ্চশিক্ষা কেমন করে হবে?"

ছাত্রীর বক্তব্য, "16 ডিসেম্বর আমরা কয়েকজন বান্ধবী একসঙ্গেই ফর্ম ফিল-আপ করেছিলাম ৷ সেদিন সার্ভার ডাউন ছিল ৷ স্যর বলেছিলেন, কাগজ আর ফি জমা দিয়ে যা ৷ পরে ফর্মের কাজ করে দেব ৷ তিনি সবার কাজ করে দিয়েছেন ৷ আমার কাজ করেননি ৷ গত 2 ফেব্রুয়ারি অ্যাডমিট কার্ড নেওয়ার জন্য আমাদের স্কুলে ডাকা হয় ৷ আমি স্কুলে গিয়ে দেখি, সবার অ্যাডমিট কার্ড আসলেও আমার আসেনি ৷ গোটা বিষয়টি আমি এসআই ম্যাডাম-সহ পঞ্চায়েত সদস্য ও প্রধানকে জানিয়েছি ৷ মা বিডিওকেও জানিয়েছেন ৷ আমার কাছে রেজিস্ট্রেশন সার্টিফিকেট রয়েছে ৷ টেস্ট পরীক্ষায় উত্তীর্ণও হয়েছি ৷ তারপরেও স্যরের এমন মিথ্যে কথা মেনে নিতে পারছি না ৷ পরীক্ষা দিতে না-পারলে আমার আত্মহত্যা ছাড়া গতি নেই ৷"

এই ঘটনায় কনুয়া ভবানীপুর হাইস্কুলের প্রধান শিক্ষকের বিরুদ্ধে ক্ষোভ উগরে দিয়েছেন হরিশ্চন্দ্রপুর 1 নম্বর পঞ্চায়েত সমিতির শিক্ষা কর্মাধ্যক্ষ নরেন্দ্রনাথ সাহা ৷ তিনি জানান, অত্যন্ত দুঃখজনক ঘটনা ৷ ওই স্কুলের প্রধান শিক্ষক একজন ক্রিমিনাল ৷ স্কুলের একাধিক দুর্নীতিতে তিনি জড়িত ৷ ওই ছাত্রী তার বন্ধুদের সঙ্গে একইদিনে ফর্ম ফিল আপ করেছিল ৷ সবার অ্যাডমিট কার্ড আসলেও তার আসেনি ৷ প্রধান শিক্ষকের গাফিলতিতেই এই ঘটনা ঘটেছে বলে দাবি তাঁর ৷

এ নিয়ে প্রধান শিক্ষক রাজা চৌধুরীর সঙ্গে ফোনে যোগাযোগ করা হলে তাঁর সাফ কথা, "ওই মেয়েটি ফর্ম ফিল-আপ করেনি ৷ আমার বক্তব্য আমি এসআই এবং বিডিওকে জানিয়ে দিয়েছি ৷ মেয়েটি কী অভিযোগ করেছে, তা আমার জানা নেই ৷ এর বেশি কিছু বলব না ৷" হরিশ্চন্দ্রপুর 1 নম্বর ব্লকের বিডিও সৌমেন মণ্ডল জানান, বিষয়টি নিয়ে স্কুল কর্তৃপক্ষের সঙ্গে কথা হয়েছে ৷ মেয়েটি যাতে উচ্চমাধ্যমিক পরীক্ষা দিতে পারে তার সবরকম চেষ্টা চলছে ৷ আশা করা যাচ্ছে, পরীক্ষার আগেই তার অ্যাডমিট কার্ড চলে আসবে ৷

আরও পড়ুন:

  1. মাধ্যমিক-উচ্চমাধ্যমিকের সময় নিয়ে বড় সিদ্ধান্ত পর্ষদের
  2. দুয়ারে উচ্চমাধ্যমিক, ছুটির দিনেও কাজ করবেন সরকারি আধিকারিকরা; নির্দেশ সংসদের
  3. পরীক্ষার আগে রহস্যজনকভাবে উধাও উচ্চমাধ্যমিকের ছাত্রী, ফের আতঙ্ক মালদায়
ETV Bharat Logo

Copyright © 2024 Ushodaya Enterprises Pvt. Ltd., All Rights Reserved.