শিক্ষকের চাকরি তৈরি আছে, রাম-বাম-শ্যামের জন্যই দেওয়া যাচ্ছে না, অভিযোগ মমতার

author img

By ETV Bharat Bangla Desk

Published : Jan 24, 2024, 3:12 PM IST

Mamata Banerjee

Mamata Banerjee: শিক্ষকদের চাকরি দেওয়ার জন্য সবকিছু প্রস্তুত করে রেখেছে রাজ্য সরকার ৷ কিন্তু বিরোধীদের মামলার জন্য তা করা যাচ্ছে না ৷ বুধবার পূর্ব বর্ধমান থেকে এই অভিযোগ করেছেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় ৷ তিনি আদালতের কাছে শূন্যপদ পূরণের জন্য প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়ার আরজি জানিয়েছেন ৷

বর্ধমান, 24 জানুয়ারি: এ রাজ্যে বাম-কংগ্রেসের সঙ্গে জোটের সম্ভাবনা যে নেই, বুধবার পূর্ব বর্ধমানের যাওয়ার আগেই সেই কথা স্পষ্টভাবে জানিয়ে দিয়েছিলেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় । জোট বন্ধুদের সঙ্গে দূরত্ব বাড়ার পরেই বাম-কংগ্রেস এবং বিজেপিকে এক সারণীতে এনে বর্ধমান থেকে ফের আক্রমণ শানালেন তিনি । রাজনীতির ময়দানে নিয়োগ দুর্নীতির অভিযোগ তুলে বিরোধীপক্ষ যখন তাঁর সরকারকে কোণঠাসা করতে বদ্ধপরিকর, ঠিক তখনই নিয়োগ না হওয়ার কারণ হিসাবে এই বিরোধীদেরই কাঠগড়ায় তুললেন বাংলার প্রশাসনিক প্রধান। বুঝিয়ে দিলেন ‘রাম-বাম ও শ্যামের’ কারণে চাকরি হচ্ছে না নতুন প্রজন্মের । সরকার চাকরি দিতে প্রস্তুত থাকলেও আদালতে গিয়ে বাধা তৈরির চেষ্টা করছে তারা ।

এ দিন মুখ্যমন্ত্রী বলেন, "শিক্ষকদের নিয়োগের বিষয়টি তৈরি আছে । কয়েক হাজার শিক্ষক আমরা নেব । কিন্তু আদালতে মামলা করে আটকে রেখে দিয়েছে এই সিপিএম, কংগ্রেস ও বিজেপি । অর্থাৎ রাম-বাম-শ্যামের জোট । তাই তরুণদের চাকরি আটকে গিয়েছে । তা না হলে 60-70 হাজার ছেলেমেয়েরা শুধু স্কুলেই চাকরি পেতেন জেনে রাখবেন । আমরা সমস্ত কিছু তৈরি করে বসে আছি । আপনারা আওয়াজ তুলুন ।"

শুধু বিরোধীদের আক্রমণ নয়, এ দিন বিচারব্যবস্থার কাছেও শূন্যপদ পূরণের জন্য প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়ার দাবি জানিয়েছেন মমতা । তিনি বলেন, "আমরা চাই, যদি কোথাও অন্যায় হয়ে থাকে আদালত তা শুধরে দিক । আমার কিছু বলার নেই । কিন্তু নতুন ছেলেমেয়েরা যাতে সুযোগ পায়, তার জন্য অবিলম্বে যে শূন্যপদ আছে, সেগুলি পূরণ করার ব্যবস্থা করতে হবে । কারণ আমি চাই শূন্যপদগুলো পূরণ হলে হাজার হাজার ছেলেমেয়ের চাকরি হবে ।"

মুখ্যমন্ত্রী এ দিন আরও বলেন, "আমি দুঃখিত কখনও কখনও সরকারের হাত বেঁধে রেখে দেওয়া হয় । কেউ কেউ ভোটে জেতে না, কোর্টে চলে যায় । আদালতের প্রতি আমার সম্মান আছে । আমি কোনও বিচারপতি সম্পর্কে বলতে চাই না । বলাও যায় না । তবে রায় সম্পর্কে বলা বা সমালোচনা করা যেতে পারে । এটা নিয়মে আছে । আমি নিজেও আইনজীবী । আমি জানি কিভাবে কী করতে হয়, না করতে হয় । আমি আবেদন করব, মাননীয় আদালতের কাছে দয়া করে নতুন শূন্যপদগুলো পূরণ করার ব্যবস্থা করে দিন । যাতে হাজার হাজার ছেলেমেয়ে চাকরির সুযোগ পায় । তাদের চাকরি তৈরি আছে ।"

রাজনৈতিক মহলের মতে, মুখ্যমন্ত্রী নিজেও বুঝতে পারছেন নির্বাচনের আগে তাঁর সরকারের সবচেয়ে বড় প্রশ্ন হল কর্মসংস্থান । নিয়োগ তথা দুর্নীতির প্রশ্নে যেভাবে বিভিন্ন ক্ষেত্রে তাঁর সরকারের মন্ত্রীদের কেন্দ্রীয় তদন্তকারী সংস্থার মুখোমুখি হতে হচ্ছে, এই অবস্থায় একমাত্র নতুন কর্মসংস্থান সৃষ্টিই তার ভাবমূর্তি ফেরাতে পারে । কিন্তু আদালতে মামলা অনেক সময় নতুন নিয়োগের অন্তরায় হয়ে দাঁড়াচ্ছে ৷ সেই কারণেই বর্ধমানের সভা থেকে সরাসরি বাম-কংগ্রেস-বিজেপিকে রাজ্যে নিয়োগ আটকে রাখার জন্য কাঠগড়ায় তুললেন তিনি ।

আরও পড়ুন:

  1. আমাদের মতো সমাজ সংস্কার সারা পৃথিবীতে কেউ করেনি, বর্ধমানে বললেন মুখ্যমন্ত্রী
  2. জোট নিয়ে কংগ্রেসের ঘাড়ে দায় চাপিয়ে বাংলায় একা লড়ার ঘোষণা মমতার
  3. শিক্ষক নিয়োগ দুর্নীতি কাণ্ডে দুই পার্থর হাতে থাকত কোটি টাকা, দাবি ইডির
ETV Bharat Logo

Copyright © 2024 Ushodaya Enterprises Pvt. Ltd., All Rights Reserved.