কারচুপির অভিযোগের মধ্যে অন্যান্যদের সমর্থনে পাকিস্তানে সরকার গড়বেন শরিফ !

author img

By ETV Bharat Bangla Desk

Published : Feb 11, 2024, 9:33 AM IST

ETV Bharat

Pakistan Central Election 2024: পাকিস্তানের জাতীয় নির্বাচনে রিগিং, কারচুপির অভিযোগ উঠেছে ৷ এর মধ্যে প্রাক্তন প্রধানমন্ত্রী নওয়াজ শরিফ সরকার জোট সরকার গড়ার দাবি তুলেছেন ৷ এ বিষয়ে রইল ইটিভি ভারতের অরুণিম ভুঁইয়ার রিপোর্ট ৷

নয়াদিল্লি, 11 ফেব্রুয়ারি: পাকিস্তানের জাতীয় নির্বাচনে দেদার কারচুপির অভিযোগ ৷ পাকিস্তানের সেনাবাহিনী নির্বাচনকে প্রভাবিত করার সবরকম চেষ্টা চালিয়েছে বলে অভিযোগ একপক্ষের ৷ তাও 2024 সালে সে দেশের জাতীয় নির্বাচন মনে রাখার মতো ৷

পাকিস্তানের প্রাক্তন প্রধানমন্ত্রী ইমরান খানের তেহরিক-ই-ইনসাফ বা পিটিআই সমর্থিত নির্দল প্রার্থীরা ন্যাশনাল অ্যাসেম্বলির 266টি আসনের মধ্যে 100টিতে জয়ী হয়েছেন ৷ আরেক প্রাক্তন প্রধানমন্ত্রী নওয়াজ শরিফের পাকিস্তান মুসলিম লিগ-নওয়াজ (পিএমএল-এন) 71টি আসনে জয়ী হয়েছে ৷ অন্যদিকে পাকিস্তান পিপলস পার্টি বা পিপিপি 54টি আসনে জয়ী হয়েছে ৷ যে দলের প্রধান প্রাক্তন প্রধানমন্ত্রী বেনজির ভুট্টোর ৷ যদিও এখন পিপিপি'র নেতৃত্বে বেনজির-পুত্র বিলওয়াল ভুট্টো জারদারি ৷

PTI supported independent candidate win in Pakistan Election 2024
পাকিস্তানের জাতীয় নির্বাচনে জয়ী পিটিআই সমর্থিত নির্দল প্রার্থীরা

দেশের এই রাজনৈতিক পরিস্থিতিতে নওয়াজ শরিফ ঘোষণা করেছেন, তাঁর পিএমএল-এন দেশের একমাত্র দল যে সরকার গড়তে পারে ৷ তারা অন্য দলগুলির কাছে জোট সরকার গড়ার আর্জি জানাবে ৷ এদিকে পিএমএল-এন এবং পিপিপি দল যত সংখ্যক আসন পেয়েছে, তার থেকে অনেক বেশি আসন দখল করেছে পিটিআই সমর্থিত নির্দল প্রার্থীরা ৷ এতে বোঝা যায়, পাকিস্তানে প্রাক্তন ক্রিকেটার তথা রাজনৈতিক নেতা ইমরান খানের জনপ্রিয়তা কতটা ৷ আর এই জয়ই পাকিস্তানের সেনাবাহিনীর অশান্তির কারণ ৷

Pakistan Election 2024
পাকিস্তান জাতীয় নির্বাচনে ভোটগণনায় কারচুপির অভিযোগ

ইমরান খান এখন পাকিস্তানের সেনাবাহিনীর মাথাব্যথার কারণ হয়ে দাঁড়িয়েছেন ৷ তিনি পাকিস্তান নির্বাচন কমিশনের কাছে আবেদন জানিয়েছিলেন, ক্রিকেট ব্যাটকে পিটিআইয়ের প্রতীক করবেন ৷ তবে নির্বাচন কমিশন সেই অনুমতি দেয়নি ৷ কমিশন দলের অভ্যন্তরীণ নির্বাচনে গোলমালের কারণ দর্শিয়ে ইমরানের আবেদন খারিজ করে দিয়েছে ৷ এমনকী প্রাক্তন প্রধানমন্ত্রী ইমরান খানও এবারের নির্বাচনে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করতে পারেননি ৷ তাঁর বিরুদ্ধে তিনটি ফৌজদারি মামলা দায়ের হয় এবং তিনি জেলবন্দি ৷

পিটিআই সমর্থিত নির্দল প্রার্থীরাই নির্বাচনে সবচেয়ে বেশি আসনে জয়ী হয়েছে ৷ তাই তারা সরকার গড়তে অন্য় দলগুলির সঙ্গে কথা বলতে পারে বলে জানা গিয়েছে ৷ পিটিআই-এর প্রবীণ নেতা গোহর আলি খানের দাবি, নির্দল প্রার্থীরা নিজেরাই সরকার গড়তে পারে ৷ এর জন্য পিএমএল-এন বা পিপিপি'র সঙ্গে জোট গড়ার দরকার নেই ৷

তবে ভোটে কারচুপি হয়েছে বলে অভিযোগ উঠেছে ৷ আর সে কারণেই ভোটগণনা এবং ফলাফল ঘোষণায় দেরি হয়েছে ৷ এমনই একটি ঘটনার কথা জানতে পেরেছে ইটিভি ভারত ৷ কানওয়াল শোজাব পিটিআই সমর্থিত নির্দল প্রার্থী ৷ তিনি পিটিআই-এর মহিলা সংগঠনের সভাপতিও ৷ তাঁর অভিযোগ পঞ্জাব প্রদেশে উচ শরিফে একটি সরকারি মহিলা স্কুলে ভোটগণনার সময় কারচুপি করা হয়েছে ৷ ওই ভোটকেন্দ্রটি পিএমএল-এন প্রার্থী সামিউল হাসান গিলানির বাড়ির কাছে ৷ তিনি নাকি বাড়ি থেকে দু'টি ব্যালট পেপার বোঝাই ব্যালট বাক্স নিয়ে এসেছিলেন ভোটকেন্দ্রে ৷ একটি ভিডিয়ো দেখিয়ে এই দাবি করেছেন পিটিআই কর্মী নাহিদ ৷ অবশ্য ইটিভি ভারত এর সত্যতা যাচাই করেনি ৷

মজার ব্যাপার গিলানির সৎ ভাই আলি হাসান গিলানি পিপিপি প্রার্থী ৷ তিনি ন্যাশনাল অ্য়াসেম্বলির 166 নম্বর আসন বাহাওয়ালপুর থেকে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করেছেন ৷ তিনিও রিটার্নিং অফিসারের কাছে ফের ভোটগণনার আবেদন জানিয়েছেন ৷ এদিকে একই আসনে নির্দল প্রার্থী হয়েছেন পূর্বতন বাহাওয়ালপুর স্টেটের রাজা বাহাওয়াল আব্বাস আব্বাসি ৷ তিনিও ফলাফল নিয়ে চ্যালেঞ্জ জানিয়েছেন ৷ ফলাফলে তিনি দ্বিতীয় স্থানে রয়েছেন ৷ তবে রাজার অভিযোগ, তিনিই জয়ী প্রার্থী ৷

আরও পড়ুন:

  1. পাকিস্তানের নির্বাচনের ফলাফল যেন এক রূপকথার গল্প, পড়ুন বিশেষজ্ঞের বিশ্লেষণ
  2. জেলে থেকেও পাকিস্তানের কুর্সির দৌড়ে এগিয়ে ইমরান, আত্মবিশ্বাসী নওয়াজ
  3. পাকিস্তানের ভোটের ফল যাই হোক, ভারতে লোকসভা নির্বাচনের আগে পরিস্থিতি বদলের সম্ভাবনা নেই
ETV Bharat Logo

Copyright © 2024 Ushodaya Enterprises Pvt. Ltd., All Rights Reserved.