জম্মু-কাশ্মীরে ইন্টারনেট সংক্রান্ত পর্যালোচনা নির্দেশ সাজিয়ে রাখার জন্য নয়, কেন্দ্রকে বলল সুপ্রিম কোর্ট

author img

By ETV Bharat Bangla Desk

Published : Jan 30, 2024, 7:59 PM IST

Supreme Court

Supreme Court: মঙ্গলবার সুপ্রিম কোর্ট জানিয়েছে, কেন্দ্রশাসিত অঞ্চল জম্মু ও কাশ্মীরে ইন্টারনেট সংক্রান্ত বিধিনিষেধ নিয়ে পর্যালোচনা নির্দেশ (রিভিউ অর্ডার) আলমারিতে সাজিয়ে রাখা উচিত নয় ৷ এই অর্ডার অবশ্যই প্রকাশ্যে আনা উচিত ৷ এই নিয়ে প্রতিবেদনটি লিখেছেন সুমিত সাক্সেনা ৷

নয়াদিল্লি, 30 জানুয়ারি: কেন্দ্রশাসিত অঞ্চল জম্মু ও কাশ্মীরে ইন্টারনেট সংক্রান্ত বিধিনিষেধ নিয়ে পর্যালোচনা নির্দেশ আলমারিতে সাজিয়ে রাখা উচিত নয় ৷ এটা অবশ্যই প্রকাশ্যে আনা উচিত ৷ সুপ্রিম কোর্ট মঙ্গলবার এই কথা জানিয়েছে ৷

সুপ্রিম কোর্ট এ দিন জম্মু ও কাশ্মীরের ইন্টারনেট বিধিনিষেধ সম্পর্কিত পর্যালোচনা আদেশ প্রকাশের জন্য ফাউন্ডেশন অফ মিডিয়া প্রফেশনালদের একটি আবেদনের শুনানি করে । এই মামলার শুনানি হয় সুপ্রিম কোর্টের বিচারপতি বিআর গাভাই ও সঞ্জয় করোলের সমন্বয়ে গঠিত বেঞ্চে ৷

সেখানে কেন্দ্রশাসিত অঞ্চল জম্মু ও কাশ্মীরের হয়ে সওয়াল করেন অতিরিক্ত সলিসিটর জেনারেল (এএসজি) কেএম নটরাজ ৷ তিনি আদালতে জানান, আবেনকারী জম্মু ও কাশ্মীরে ইন্টারনেট সংক্রান্ত বিধিনিষেধ নিয়ে পর্যালোচনা নির্দেশ প্রকাশ্যে আনার দাবি জানিয়েছেন ৷ যা শুনে বিচারপতি গাভাই নটরাজকে বলেন, "বিবেচনার কথা ভুলে যান, আপনি আদেশগুলি প্রকাশ করুন... আপনি কি এমন বিবৃতি দিচ্ছেন যে পর্যালোচনা আদেশ প্রকাশিত হবে ?" নটরাজ বলেন, এ বিষয়ে তাঁর নির্দেশ পাওয়া দরকার রয়েছে ।

আবেদনকারীর তরফে আদালতে হাজির ছিলেন আইনজীবী শাদান ফারসাত ৷ তিনি আদালতে জানান, পর্যালোচনা আদেশগুলি আইনের অধীনে পাশ করার মতো বিষয় এবং তাই সেগুলি অবশ্যই প্রকাশ করা উচিত ৷ কিন্তু কর্তৃপক্ষ বলছে যে বিশেষ কমিটির প্রতিবেদন প্রকাশ করা যাবে না । তিনি উল্লেখ করেন যে তিনি এর বিরোধিতা করছেন না ৷ এর মধ্যে জাতীয় নিরাপত্তার কারণ থাকতে পারে ৷ তবে পর্যালোচনা নির্দেশ একটি বিধিবদ্ধ আদেশ এবং সর্বোচ্চ আদালত স্পষ্টভাবে বলেছে যে মূল নির্দেশ ও তার পর্যালোচনা প্রকাশ করতে হবে ।

কেএম নটরাজ জানান যে 370 ধারা বাতিলের পরে এই সমস্ত সমস্যাগুলি নিষেধাজ্ঞার সময় উত্থাপিত হয়েছিল ৷ আর সেই সমস্ত প্রার্থনা মেনে নেওয়া হয়েছিল ৷ এমনকি অবমাননাও বরখাস্ত করা হয়েছিল । আদালতের নির্দেশের উপর ভিত্তি করে এখন আবেদনকারী একটি নতুন প্রার্থনা নিয়ে এসেছেন ৷

ফারসাত সর্বোচ্চ আদালতের বিচারপতি অনুরাধা ভাসিনের একটি রায় থেকে একটি অনুচ্ছেদ উল্লেখ করেন ৷ সেটাকে উল্লেখ করে বেঞ্চ জানায় যে পর্যালোচনার আদেশগুলি আলমারিতে সাজিয়ে রাখার জন্য নয় ৷ তখন নটরাজ দাবি করেন যে আবেদনকারীর আইনজীবী সেই সমস্ত সুপারিশ চান । বিচারপতি গাভাই তখন পালটা জানান, আবেদনকারী পর্যালোচনা আদেশগুলি প্রকাশ হোক, এটা চাইছেন৷ পর্যালোচনা আদেশগুলি প্রকাশ করার প্রয়োজন নেই, এমন বিষয় দেখানোর জন্য নটরাজকে বলেন বিচারপতি গাভাই ।

শীর্ষ আদালত উল্লেখ করেছে যে ফারসাত বলেছেন যে অনুরাধা ভাসিন মামলার রায়ে শীর্ষ আদালত বলেছে যে পর্যালোচনা আদেশগুলিও প্রকাশ করা প্রয়োজন এবং জম্মু ও কাশ্মীরের কেন্দ্রশাসিত অঞ্চলে এটি করা হচ্ছে না । অতিরিক্তি সলিসিটর জেনারেল দাবি করেছেন যে আদালতের আদেশ দেখায় যে বিবেচিত বিষয়গুলি প্রকাশের প্রয়োজন নেই । শুনানির পর আদালত তার নির্দেশে বলেছে, "বিবেচনাগুলি প্রকাশ করার প্রয়োজন নাও হতে পারে, তবে পর্যালোচনা পাশ করার আদেশগুলি প্রকাশ করা প্রয়োজন হবে ৷ নটরাজ এই বিষয়ে নির্দেশ পাওয়ার জন্য দুই সপ্তাহের সময় চেয়েছেন ৷”

আরও পড়ুন:

  1. মামলায় উল্লেখ করা যাবে না আবেদনকারীর জাতি-ধর্ম, কড়া নির্দেশিকা সুপ্রিম কোর্টের
  2. নিপীড়ন নয়, ক্ষমতা ব্যবহার হোক মুক্তির জন্য, বার্তা দেশের প্রধান বিচারপতির
  3. সংবিধানের অনুচ্ছেদ 370 বাতিল নিয়ে সুপ্রিম কোর্টের যুগান্তকারী রায়ের 10টি মূল বক্তব্য
ETV Bharat Logo

Copyright © 2024 Ushodaya Enterprises Pvt. Ltd., All Rights Reserved.